ভোটের আগে ফালাকাটায় পাট্টা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু, কটাক্ষ বিজেপির

235

ফালাকাটা: বিধানসভা নির্বাচনের আগে ফালাকাটায় ফের তৎপর হয়ে উঠল প্রশাসন। এই শহরের হাটখোলার বাসিন্দাদের পাট্টার দাবি দীর্ঘদিনের। কয়েকশো বাসিন্দা জেলা পরিষদের হাট ল্যান্ডে বসবাস করেন। কিন্তু জমির মালিকানা স্বত্ব না থাকায় তাঁরা সরকারি নানা সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। এ নিয়ে গত সেপ্টেম্বর মাসে হাটখোলার বাসিন্দাদের সঙ্গে বৈঠক করে পাট্টা প্রদানের ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা-জনপ্রতিনিধিরা। সোমবার সেই প্রক্রিয়াই শুরু করল প্রশাসন।

এদিনও হাটখোলায় বৈঠক করে পাট্টা দেওয়ার জন্য জমির মাপজোখ শুরু করেন ভূমি দপ্তরের কর্মীরা। যত দ্রুত সম্ভব বাসিন্দাদের পাট্টা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের নেতারা। এদিকে, ভোটের আগে প্রশাসন ও তৃণমূলের এই তৎপরতাকে কটাক্ষ করেছে বিজেপি। তবে এই প্রক্রিয়া শুরু হওয়ায় খুশি হাটখোলার বাসিন্দারা।

- Advertisement -

ফালাকাটা শহরে ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির থেকে ভোট কম পায় তৃণমূল কংগ্রেস। অথচ রাজ্য সরকারের সাড়ে ন’বছরের রাজত্বে এই শহরে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও শহরের ভোটারদের একাংশ কেন বিমূখ হয়েছেন তা নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের ভিতরে বারবার চর্চা হয়েছে। এক্ষেত্রে শহরের বাসিন্দাদের একটি অন্যতম দাবি হল পুরসভা। যা সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন। আরেকটি দাবি হল, হাটখোলার বাসিন্দাদের জমির অধিকার। ভোটের অংক কষে এবার এই পাট্টার দাবিও পূরণ করতে চাইছে শাসকদল। এজন্য এদিন থেকেই সেই প্রক্রিয়া শুরু করল প্রশাসন।

এদিন দুপুরে ফালাকাটার বিএলএলআরও অবিনাশ লামা সহ ভূমি দপ্তরের কর্মীরা হাটখোলায় উপস্থিত হন। এছাড়াও সেখানে উপস্থিত ছিলেন ফালাকাটা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সুরেশ লালা, পঞ্চায়েত সমিতির ভূমি কর্মাধ্যক্ষ প্রদীপ বর্মন, তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি সুভাষ রায়, ব্লক সহ সভাপতি ত্রিনাথ সাহা প্রমুখ। তাঁরা প্রথমে বাসিন্দাদের একাংশের সঙ্গে বৈঠক করেন। সেখানে পাট্টা প্রদানের প্রাথমিক প্রক্রিয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়। তারপরই কিছু জমির মাপজোখ করা হয়।

এ প্রসঙ্গে বিএলএলআরও অবিনাশ লামা বলেন, ‘জেলা পরিষদের জমিতে বসবাসকারীরা পাট্টার জন্য আবেদন করেছিলেন। সেজন্য এদিন থেকে জমির মাপজোখ শুরু হল। জমি মাপার এই রিপোর্ট তৈরি করে দ্রুত জেলা প্রশাসনের কাছে পাঠানো হবে।’ ভূমি কর্মাধ্যক্ষ প্রদীপ বর্মন বলেন, ‘হাটখোলার বাসিন্দারা যাতে দ্রুত জমির পাট্টা পায় সেজন্য চেষ্টা চলছে।’

তৃণমূলের ব্লক সভাপতি সুভাষ রায় বলেন, ‘ফালাকাটায় ধারাবাহিক উন্নয়ন চলছে। মুখ্যমন্ত্রী পুরসভার কথা ঘোষণা করেছেন। হাটখোলার বাসিন্দারা পাট্টার দাবি জানিয়েছিলেন। গত সেপ্টেম্বর মাসে এ নিয়ে বৈঠক হয়। এদিন পাট্টা প্রদানের সেই প্রাথমিক প্রক্রিয়া শুরু হল। আমরা মানুষের পাশে আছি।’

তবে এই তৎপরতার পিছনে রাজনৈতিক কারণ রয়েছে বলে মনে করছে বিজেপি। দলের জেলা সহ সভাপতি জয়ন্ত রায় বলেন, ‘এই দাবি দীর্ঘদিনের। অথচ এতদিন সে কথা মনে ছিল না তৃণমূল কংগ্রেস ও প্রশাসনের। এখন এসব ভোটের কারণে করা হচ্ছে। আসলে এই তৎপরতা দেখিয়েও তৃণমূলের কোনও ফায়দা হবে না। ফালাকাটা শহরের মানুষ বিজেপির সঙ্গেই আছেন।’