সোনার বাংলা গড়তে বাধা দিলে কেউই রেয়াত পাবে না: রথীন বসু

269

বক্সিরহাট: নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বিজেপি এ রাজ্যে সোনার বাংলা গড়বে। তাতে বাধা দিলে কাউকে রেয়াত করা হবে না। বিজেপির প্রতিবাদ মিছিলে উপস্থিত হয়ে পুলিশ ও শাসকদলের বিরুদ্ধে এমনই সুরে হুঁশিয়ারি দিলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রথীন বসু। তিনি বলেন, ‘যেসব পুলিশ তৃণমূলের হয়ে কাজ করছে তাদের তালিকা তৈরি হচ্ছে। রাজ্যকে বাঁচাতেই তৃণমূলকে পরিবর্তন করে রাজ্যে বিজেপি আনতে চাইছে মানুষ। নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে বিজেপি এ রাজ্যে সোনার বাংলা গড়বে আর তাতে বাধা দিলে কাউকে রেয়াত করা হবে না। তিন মাস পর বিধানসভা নির্বাচন হবে তারপর দেখা যাবে।’

দলীয় কর্মীর হত্যার প্রতিবাদে ডাকা বনধে বাকলায় বিজেপির মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ, জোড়াই মোড়ে পুলিশ দলীয় দপ্তরে ঢুকে কর্মীদের মারধর ও ভাঙচুর করে এবং বনধের দিন গ্রেপ্তার হওয়া ১৭ জন বিজেপি কর্মীকে নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে শনিবার দুপুরে বক্সিরহাটে ধিক্কার মিছিল করে বিজেপি। বক্সিরহাট হাইস্কুলের সামনে থেকে মিছিল শুরু হয়। মিছিলটি বক্সিরহাট থানার সামনে যেতেই মিছিল আটকে দেয় পুলিশ। সেখানে বসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বিজেপির নেতা-কর্মীরা।

- Advertisement -

মিছিলে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রথীন বসু, জেলা বিজেপির সভানেত্রী মালতি রাভা, জেলা সহ-সভাপতি শিখা বোস, সম্পাদক সঞ্জয় চক্রবর্তী, আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বারলা, তুফানগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রীক সংযোজক উৎপল দাস প্রমুখ। থানার সামনে বিক্ষোভের সময় তাঁরা প্রত্যেকেই বক্তব্য রাখেন। প্রত্যেকেই পুলিশ ও তৃণমূলের বিরুদ্ধে হুমকির সুর চড়ায়।

পুলিশের বিরুদ্ধে হুমকির সুরে জেলা বিজেপির সভানেত্রী মালতি রাভা বলেন, ‘তৃণমূলের কথায় বিজেপি কর্মীদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসাবেন না। এটা বন্ধ না হলে এরপর আমরা হাতে অস্ত্র তুলে নিতে বাধ্য হব।’ পুলিশ তাঁদের কর্মীদের এনকাউন্টারের হুমকি দিচ্ছে। পুলিশ সঠিকভাবে না চললে মানুষ ক্ষেপে যাবে বলে জানান মালতিদেবী। বনধের দিন ধৃত ১৭ বিজেপি কর্মীকে নিঃশর্তে মুক্তির দাবিও তোলেন তিনি।