শহীদ জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দুদিন সমস্ত রাজনৈতিক কর্মসূচি স্থগিত রাখল বিজেপি

ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক: লাদাখে শহীদ হওয়া জওয়ানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে নিজেদের সমস্ত রাজনৈতিক কর্মকান্ড দুদিনের জন্য স্থগিত রাখল বিজেপি। দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা বৃহস্পতিবার সকালে টুইটে একথা জানান।

নাড্ডা টুইটে লেখেন, গালওয়ান উপত্যকায় আমাদের মাতৃভূমিকে রক্ষা করার সময় সাহসী সৈন্যদের সর্বোচ্চ ত্যাগের কথা সর্বদা স্মরণে থাকবে। দেশবাসী তাঁদের কাছে কৃতজ্ঞ। আমি শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। বিজেপি আগামী ২ দিনের জন্য ভার্চুয়াল সমাবেশ সহ সমস্ত রাজনৈতিক কর্মসূচি স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদিকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিজেপিও আগামী দুদিন সমস্ত রাজনৈতিক কর্মসূচি স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এদিন সকালে নাড্ডার টুইটের পর রাজ্য বিজেপি সূত্রে এই সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে।

- Advertisement -

উল্লেখ্য, সোমবার রাতে পূর্ব লাদাখের গালওয়ান ভ্যালিতে চিনা সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে এক কর্নেল-সহ ২০ জন ভারতীয় জওয়ান শহিদ হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে বাংলার ২ জওয়ানও রয়েছেন। এদিকে এই ২০ জওয়ান শহীদ হওয়ার পর থেকে থেকে দুদেশের মধ্য়ে চাপানউতোর শুরু হয়েছে। এরই মধ্য়ে গলওয়ান উপত্যকায় সেনা সরানো নিয়ে বুধবারের পর বৃহস্পতিবার ফের সেনার মেজর জেনারেল পর্যায়ের বৈঠকে বসেছে ভারত-চিন।

গত দেড় মাস ধরে পূর্ব লাদাখে ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা চলছে। দুই দেশই সীমান্তে প্রচুর সংখ্যক সেনা মোতায়েন করছে। লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল বা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে বারবার ভারত ভূখন্ডে ঢুকে পড়ার অভিযোগ উঠেছে চিনা সেনার বিরুদ্ধে। ৫ মে প্যাংগং লেকের কাছে ভারতীয় ও চিনা সেনার মধ্যে হাতাহাতি হয়। স্থানীয়ভাবে ঝামেলা মেটানোর চেষ্টা করা হলেও, কোনও লাভ হয়নি।

লাদাখে ভারত-চিন সীমান্তে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে কয়েকদিন আগে জানিয়েছিলেন সেনাবাহিনীর প্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে। সেনাপ্রধান বলেছিলেন, ‘ভারত-চিন সীমান্তে পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।’ কিন্তু তারপর সোমবার রাতে যেভাবে লাদাখের গালিয়ান ভ্যালিতে চিনা সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ হল, তাতে লাদাখের পরিস্থিতি কতটা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে সেই প্রশ্ন উঠছে।

বহুদিন ধরেই গালওয়ান উপত্যকাকে নিজেদের বলে দাবি করে আসছে চিন। সোমবারের সংঘাতও সেই এলাকার আধিপত্য নিয়েই। তবে ভারতের তরফে ফের একবার এই বিষয়ে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে গালওয়ান উপত্যকা নিয়ে চিনের এই দাবি অতিরঞ্জিত। তা কখনোই সমর্থনযোগ্য নয়। কড়া অবস্থান নিয়েছে ভারত। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গতকাল বলেন, ‘লাদাখে চিনা সেনার সঙ্গে সংঘর্ষে শহিদ ভারতীয় জওয়ানদের আত্মবলিদান কখনওই বৃথা যাবে না।’ এই পরিস্থিতিতে এখন ভারতের তরফে কী পদক্ষেপ করা হয়, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।