পাহাড়ে মাস্টারস্ট্রোক দিতে চায় বিজেপি

রণজিৎ ঘোষ, শিলিগুড়ি : পাহাড় সমস্যার স্থায়ী সমাধান করতে বিধানসভা ভোটের আগেই পদক্ষেপ করতে চাইছে বিজেপি। বিমল গুরুংরা তৃণমূল কংগ্রেসে ভিড়ে যাওয়ায় রাজ্যের শাসকদল পাহাড়ের তিনটি আসনে জয় নিয়ে একরকম নিশ্চিত। কিন্তু দার্জিলিংয়ে তিনটি আসন নিয়ে হাল ছাড়তে রাজি নয় বিজেপিও। দার্জিলিং দখলের লক্ষ্যে এখানকার সাংসদ রাজু বিস্ট কেন্দ্রের কাছে কোনও একটা মাস্টারস্ট্রোক চাইছেন। আর তাই পাহাড় নিয়ে দ্রুত পদক্ষেপের জন্য কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফের চিঠি দিয়েছেন দার্জিলিংয়ে সাংসদ। সেখানে আসন্ন বিধানসভা ভোটের কথা উল্লেখ করে তিনি লিখেছেন, ভোটের আগেই পাহাড় সমস্যার স্থায়ী সমাধানের জন্য কিছু একটা পদক্ষেপ করতে হবে।

২০০৯, ২০১৪ এবং ২০১৯ পরপর তিনবার দার্জিলিং লোকসভা আসন থেকে বিমল গুরুংয়ে নেতত্বাধীন মোর্চার সৌজন্যে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছে বিজেপি। গত ১০ বছরে বিধানসভার বিভিন্ন ভোটে পাহাড়ে বিজেপির জোটসঙ্গী বিমল গুরুংয়ের নেতত্বাৃধীন মোর্চা জয়ী হয়েছে। বারবার বিজেপি পাহাড় সমস্যার স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধানের কথা দলের নির্বাচনি ইস্তাহারে লিখেছে, কিন্তু বাস্তবে সমস্যার সমাধান করার কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি। পাশাপাশি ২০১৭ সালে পাহাড়ে হিংসাত্মক আন্দোলনে বিমলদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতা, খুন সহ শতাধিক মামলা ঝুলছে। এই মামলাগুলি থেকে তাঁদের রেহাই দেওয়ার ব্যাপারেও এখনও কোনও পদক্ষেপ করেনি বিজেপি। দাবিমতো পৃথক রাজ্য আদায়, মামলাগুলি থেকে অব্যাহতি বা জামিন পাওয়ার আশা নিয়ে দীর্ঘদিন বিজেপির ওপরে ভরসা রেখে রেখে ক্লান্ত বিমল, রোশন। তাই পাহাড়ে ফেরা এবং নিজেদের রাজনৈতিক অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে একরকম বাধ্য হয়ে আবার তৃণমূলের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন বিমলরা। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তাঁরা তৃণমূলকে সমর্থন করবেন এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই আবার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দেখতে চান বলে কলকাতায় বসে ঘোষণা করেছেন বিমল।

- Advertisement -

এখানেই সিঁদুরে মেঘ দেখছে বিজেপি। বিমল সঙ্গ ছাড়ায় এবার পাহাড়ের তিনটি আসন দখলে রাখা নিয়ে সংশয়ে বিজেপি শিবির। বলা ভালো এই নিয়ে সবচেয়ে বেশি চিন্তিত দার্জিলিংয়ে সাংসদ রাজু বিস্ট। কেননা তাঁর সংসদীয় এলাকায় এভাবে তিনটি বাঁধা আসন হাতছাড়া হলে জবাবদিহি তো তাঁকেই করতে হবে। তাই পাহাড় নিয়ে ফের ময়দানে নেমেছেন দার্জিলিংয়ে সাংসদ। তিনি গত সপ্তাহে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শা-কে একটি চিঠি দিয়েছেন। তাতে তিনি পাহাড়ের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, জোটসঙ্গী বিমল গুরুংদের তৃণমূলে যাওয়া সবই উল্লেখ করেছেন। পাহাড় নিয়ে বিজেপি যে গত তিনটি লোকসভা ভোটের ইস্তাহারে স্থায়ী রাজনৈতিক সমাধানের কথা বলেছে সেই কথাও লিখেছেন রাজু বিস্ট। তিনি দাবি জানিয়েছেন, দ্রুত পাহাড় সমস্যার স্থায়ী সমাধান নিয়ে কোনও পদক্ষেপ করা হোক। এই চিঠির বিষয়ে সাংসদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, চিঠি দিয়েছি। তবে এই প্রথম নয়, পাহাড় সমস্যা মেটাতে আমি এর আগেও প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সহ অন্যদের কাছে দরবার করেছি। এখানকার সাংসদ হিসাবে আমার দায়িত্ব আমি পালন করছি। আমি চাই পাহাড় সমস্যার স্থায়ী সমাধান করতে দ্রুত কোনও পদক্ষেপ করা হোক।

তবে তিনি বলেন, বিমল নিজের কিছু বাধ্যবাধকতা থেকে তৃণমূল শিবিরে গিয়েছেন। বিমল বিজেপির সঙ্গে নেই মানে এটা ভাবার কিছু নেই যে পাহাড়ে বিজেপির ভোট নেই। এটা ঠিকই যে, দার্জিলিং পাহাড়ে বিমলকে মানুষ ভগবানের মতো মানেন। কিন্তু ভোট দেন বিজেপিকে দেখে। আগামীতেও পাহাড়ের মানুষ বিজেপিকেই ভোট দেবেন। মোর্চার বিদ্রোহী শিবিরের সাধারণ সম্পাদক রোশন গিরি অবশ্য বলেন, বিজেপি পাহাড়ের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। এটা পাহাড়ের মানুষ বুঝে গিয়েছেন। বিজেপি আর কোনওভাবেই পাহাড়ে জিততে পারবে না।