২০০-র বেশি আসন পাচ্ছি, দাবি দিলীপ ঘোষের

37

কলকাতা: জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাসে ভরপুর বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব। এগজিট পোলের দাবি উড়িয়ে দলের রাজ্য নেতৃত্বের দাবি, ২০০-র বেশি আসন জয় এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। তৃণমূলকে সরিয়ে রাজ্যে আসল পরিবর্তন হচ্ছেই।  তবে রাজ্য নেতত্বের আত্মবিশ্বাসের মাঝে অবশ্য বাংলার ফল নিয়ে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব তাৎপর্যপূর্ণভাবে নীরব।

শুক্রবার বিকাল ৫টা পর্যন্ত বাংলার ভোটের ফল নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শা, এমনকি বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডাও কোনও মন্তব্য করেননি। অথচ এরাই মূলত রাজ্যের ভোট প্রচারে দলের প্রধান প্রচারক হিসেবে বড় ভমিকা নেন। ওই সময় তাঁদের মুখে বারবার শোনা যায় একটিই কথা, ইসবার বিজেপি দোশো পার। তাঁদের ওই আত্মবিশ্বাসের কথা ভোটের ফলের ক্ষেত্রে এখনও শোনা যায়নি।

- Advertisement -

স্বভাবতই প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে কি দলের কেন্দ্রীয় নেতত্বের আত্মবিশ্বাসে কোনও চিড় ধরেছে? রাজ্য নেতৃত্ব অবশ্য তা মানতে নারাজ। যদিও ভোটের ফল নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের এই নীরবতা নিয়ে সুনির্দিষ্টভাবে কিছু বলতে চাননি তিনি। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এদিন সব কিছু উড়িয়ে দিয়ে বলেন, স্পষ্ট সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে আমরাই ক্ষমতায় আসছি। ২০০ আসনের আশপাশেই আমরা জিতব। এর মাঝে কোনও গল্প নেই। সেই লক্ষ্যেই তৈরি হচ্ছি আমরা। ভোটের ফলাফল কী হতে পারে এই সংক্রান্ত কোনও রিপোর্ট দিলীপবাবুরা পাঠাননি দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে। বরং সরকার গঠন করার বিষয় নিয়ে তাঁদের সঙ্গে মাঝেমধ্যে কথা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

অন্যদিকে, শুক্রবার দুপুরে দলের নেতা, প্রার্থী, সাংসদদের নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠকে জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী বার্তা দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধায়। তাঁর বার্তা, যে যাই বলুক না কেন, বাংলায় তৃণমূলই আবার ক্ষমতায় ফিরবে। আর সেটাও দুই-তৃতীয়াংশ আসন নিয়ে। তিনি বলেন, বাংলার মানুষ দলে দলে গিয়ে তৃণমূলকেই ক্ষমতায় ফিরিয়ে আনার জন্য ভোট দিয়েছেন। তাঁদের ভোটে জয়ী হয়ে বাংলায় তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠন করতে চলেছে তৃণমূল।