তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ

343

রামপুরহাট: বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগে উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বীরভূমের মাড়গ্রামে এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। জখম ওই বিজেপি কর্মীর নাম সিলন শেখ, বাড়ি বীরভূমের মাড়গ্রাম দর্জিপাড়ায়। অভিযোগ, রিভলবারের আঘাতে সিলনের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাঁকে লক্ষ্য করে গুলিও ছোঁড়া হয়। কিন্তু তা লক্ষ্য ভ্রষ্ট হওয়ায় প্রাণে বাঁচেন ওই বিজেপি কর্মী। সিলনকে রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর পরিবারের তরফে এবিষয়ে মাড়গ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করছে মাড়গ্রাম থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দিন সাতেক আগে মাড়গ্রামে বিজেপির একটি সভা হয়। ওই সভায় বেশ কিছু সংখ্যালঘু মানুষ সিলনের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেন। সেই ‘অপরাধ’-এ শুক্রবার মাড়গ্রাম বাজারে পঞ্চায়েত প্রধান ভুট্টু শেখের নেতৃত্বে তাঁকে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। মেরে তাঁর মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়। বিজেপির জেলা সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল বলেন, ‘কয়েকদিন আগে আমাদের সংখ্যালঘু সেলের নেতা রেজাউল ইসলামকে মারধর করা হয়। এবার সিলন শেখ। আমরা এর শেষ দেখে ছাড়ব।’

- Advertisement -

যদিও ভুট্টু শেখ সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘মারগ্রামের আরেক বিজেপি নেতা রেজাউল ইসলাম বেকারদের কাছ থেকে চাকরি দেওয়ার নামে প্রচুর টাকা নিয়েছিলেন। দিনসাতেক আগে বেকার যুবকরা রেজাউলের বাড়ি ঘেরাও করেছিলেন। তারই বদলা নিতে এদিন সিলন শেখ ওই যুবকদের মারধর করছিলেন। এরপর বেকার যুবকরাই পালটা সিলনকে মারধর করেন। এরসঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই।’ অন্যদকে, রেজাউল পলাতক থাকায় তাঁর বক্তব্য মেলেনি।