বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

70
ফাইল ছবি

রায়গঞ্জ: বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। শনিবার ঘটনাটি ঘটে রায়গঞ্জ থানার কর্ণজোড়া ফাঁড়ির অন্তর্গত ছটপাড়ুয়া শিমুলতলা এলাকায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম দীনেশ বর্মন (৫০)। তিনি পেশায় কাঠমিস্ত্রি।এদিকে বিজেপি কর্মীকে আত্মহত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

জানা গিয়েছে, বড় মেয়ের বিয়ের জন্য চড়া সুদে ৮০ হাজার টাকা ঋণ নিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। তার মধ্যে ১০% সুদের হারে এক লক্ষ ৪০ হাজার টাকার মধ্যে এক লক্ষ ৩১ হাজার টাকা শোধ করে দেন তিনি। নয় হাজার টাকা বাকি ছিল। সেই টাকা শোধ করতে না পারায় বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে তৃণমূলের তিন দুষ্কৃতী কর্ণজোড়া ফাঁড়ির বারোগন্ডা এলাকায় আমগাছের সঙ্গে বেঁধে তাঁকে মারধর করে বলে অভিযোগ। প্রাথমিকভাবে অনুমান, সেই অপমান সহ্য করতে না পেরেই ওই ব্যক্তি গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হন। মৃতদেহের পাশে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়েছে। যার মধ্যে তৃণমূল আশ্রিত তিন দুষ্কৃতীর নাম রয়েছে।

- Advertisement -

এই বিষয়ে বিজেপির জেলা নেতা জয়ন্ত রায় জানান, দীনেশ বর্মন তাঁদের কর্মী। যারা আত্মহত্যার প্ররোচনা দিয়েছে তারা তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতী। চার ঘণ্টার মধ্যে তাঁদের গ্রেপ্তার করা না হলে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানো হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। তৃণমূলের জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল জানান, এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই। পুলিশ নিরপেক্ষ তদন্ত করলে আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে। এদিন সকালে কর্ণজোড়া ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ১৪ নম্বর কমলাবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান যমুনা বর্মন জানান, পুলিশকে সমস্ত ঘটনা জানানো হয়েছে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তার না করা হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

কর্ণজোড়া ফাঁড়ির পুলিশ আধিকারিক জানান, পরিবারকে লিখিত অভিযোগ করতে বলা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করা হবে। পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানান, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।