বিজেপি কর্মীর স্ত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ

68
ছবি: প্রতীকী

নন্দীগ্রাম: এক বিজেপি কর্মীর স্ত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল নন্দীগ্রামে। ঘটনায় অভিযোগের তির তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল। এদিকে, আগামী ১ এপ্রিল অর্থাৎ বৃহস্পতিবার নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ। আর তার আগেই এই অভিযোগে রীতিমতো উত্তাল বঙ্গ রাজনীতি।

নন্দীগ্রাম ২ নম্বর ব্লকের বয়াল ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ঘটনা। সূত্রের খবর, নির্যাতিতার স্বামী এলাকার সক্রিয় বিজেপি কর্মী হিসেবে পরিচিত। অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে বিজেপি করার জন্য তাঁকে হুমকি দিচ্ছিল এলাকার তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। নির্যাতিতার স্বামী জানিয়েছেন, তিনি সারাদিন নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর কর্মসূচিতে ছিলেন। বিকেলে বাড়ি ফিরে কাউকে দেখতে পাননি। ফোন করেও পাননি। এরপর খোঁজাখুঁজি শুরু করলে বাড়ির পিছনে খালে স্ত্রীকে অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। লোকজনকে ডাকাডাকি করার পর খাল থেকে তুলে দেখতে পান, মুখ ও পা বাঁধা অবস্থায় গলায় আঁচলের ফাঁস জড়িয়ে ফেলে দিয়ে গিয়েছে। শরীরে ধর্ষণের একাধিক চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি। তড়িঘড়ি তাঁকে গুরুতর অবস্থায় প্রথমে রেয়াপাড়া গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে সেখান থেকে তমলুকে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় তাঁকে। অভিযোগ, বিজেপি করার ‘অপরাধে’ এই ঘটনা ঘটিয়েছে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা।

- Advertisement -

তৃণমূলের তরফে অভিযোগ অস্বীকার করা হলেও এবিষয়ে এখনও কোনও তৃণমূল নেতৃত্বের বক্তব্য মেলেনি। তবে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘তৃণমূল নন্দীগ্রামে হেরে যাওয়ার আশঙ্কা করছে। তাই এই রকম খুন ধর্ষণের রাজনীতি করে সন্ত্রাসের পরিবেশ সৃষ্টি করছে।’