গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত বিজেপি যুব নেতা, অভিযোগে বিদ্ধ তৃণমূল

338

রায়গঞ্জ: গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হল এক বিজেপি যুব নেতার। মৃতের নাম মিঠুন ঘোষ(৩২)। তিনি রায়গঞ্জ বিজেপি যুব মোর্চার সহ-সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। বিজেপি যুব সহ-সভাপতির মৃত্যুর ঘটনায় অভিযোগের তীর উঠছে তৃণমূলের দিকে। যদিও তৃণমূল শিবিরের তরফে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে৷ ঘটনায় রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

ইটাহার থানার দুর্গাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের রাজ গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন মিঠুন ঘোষ। মৃতের বাবা শন্টু ঘোষ জানান, এদিন রাতে বাইকে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন মিঠুনবাবু। সেসময় তৃণমূল নেতা কাশিম আলির নেতৃত্বে একদল দুষ্কৃতী এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে শুরু করে। ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন মিঠুনবাবু। এরপরই চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। তড়িঘড়ি মিঠুনবাবুকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। যদিও শেষ রক্ষা হয়নি৷ কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। মৃতের বাবা দাবি করে বলেন, ‘আমি তিনজনকে চিনতে পেরেছি। তারা কাশিম আলি, সুকুমার ঘোষ এবং সন্তোষ মাহাতো।’

- Advertisement -

বিজেপির জেলা সভাপতি বাসুদেব সরকারের অভিযোগ, মিঠুন ঘোষকে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা পরিকল্পিতভাবে গুলি করে খুন করেছে। ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দুষ্কৃতীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে জেলাজুড়ে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে, তৃণমূলের জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগারওয়াল সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই। পুলিশ তদন্ত করলে আসল রহস্য উদঘাটিত হবে।

এদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে পুলিশ সুপার মহন্মদ সানা আকতার অবশ্য এই মুহূর্তে কোনও মন্তব্য করতে নারাজ।