৫ লক্ষ টাকা জরিমানা দাবি! বিজেপি নেতাকে মারধরে অভিযুক্ত তৃণমূল

141

বর্ধমান:

রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে এক বিজেপি নেতাকে বাঁশ পেটা করার পাশাপাশি জরিমানা দাবির অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে শহর বর্ধমানের গুডস-শেড রোড এলাকায়। ঘটনার প্রেক্ষিতে আক্রান্ত বিজেপি নেতা কল্লোল নন্দন বর্ধমান থানা পুলিশের দ্বারস্থ হন। যদিও তৃণমূলের তরফে অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

- Advertisement -

আক্রান্ত কল্লোন নন্দন বিজেপির বর্ধমান দক্ষিণ বিধানসভার আহ্বায়ক। অভিযোগ, সোমবার দুপুর নাগাদ গুডস-শেড রোডে গিয়েছিলেন কল্লোলবাবু। সেসময় কয়েকজন যুবক জোর করে স্থানীয় একটি ক্লাব ঘরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। বাধা পেয়ে পাশের একটি নির্মীয়মান বহুতলের নীচে নিয়ে গিয়ে মারধর শুরু করে। কল্লোলবাবুর বলেন, ‘মোটা বাঁশ ও লাঠি দিয়ে মারধর করা হয়। এমনকি ’জরিমানা’ বাবদ ৫ লক্ষ টাকাও চাওয়া হয়। কিছুক্ষণ পর তৃণমূলের এক নেতা এসে বলতে শুরু করেন, অনেক মেরেছিস। এবার ছেড়ে দে’।একই সময়ে অপর এক তৃণমূল নেতা পৌঁছে বাধা দেন।’ কল্লোলবাবুর দাবি, ‘তৃণমূল নেতাদের উসকানিতেই তাঁকে মারধর করা হয়েছে।

ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপির রাঢ়বঙ্গের পর্যবেক্ষক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘সারা রাজ্যের পাশাপাশি বর্ধমান শহরেও এখন তৃণমূলের গুণ্ডারাজ চলছে। অত্যাচারের হাত থেকে বিজেপি কর্মীরা রেহাই পাচ্ছে না।’

বর্ধমান দক্ষিণের বিধায়ক খোকন দাস বলেন, ‘তৃণমূলের কেউ এই ঘটনায় যুক্ত নয়। ভোটের আগে টাকার প্রলোভন দেখিয়ে অনেককে বিজেপি করাতে বাধ্য করা হয়েছিল। যাঁরা টাকা পাননি তাঁরাই এদিন গণ্ডগোল করেছেন বলে জেনেছি পুলিশকে বলেছি, এলাকায় কেউ গোলমাল করলে তাঁকে গ্রেপ্তার করতে।’