চা বলয়ে বুথ ভিত্তিক প্রচারে জোর বিজেপির

68

মোস্তাক মোরশেদ হোসেন, রাঙ্গালিবাজনা: আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট বিধানসভা কেন্দ্রে বুথ ভিত্তিক প্রচারে জোর দিচ্ছে বিজেপি। এছাড়া চা বাগানে ভোটের প্রচারে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে। দলের মণ্ডল স্তরের নেতাদের নিয়ে চা বলয় চষে বেড়াচ্ছেন বিজেপির রাজ্য সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য তথা মাদারিহাটের বিধায়ক মনোজ টিগ্গা।

বিজেপি সূত্রের খবর, প্রচারাভিযানের পাশাপাশি মণ্ডল স্তরের নেতারা নিবিড় যোগাযোগ রাখছেন বুথস্তরের কর্মীদের সঙ্গে। শুক্রবার বান্দাপানি গ্রাম পঞ্চায়েতের জয়বীরপাড়া, ঢেকলাপাড়া, বান্দাপানি চা বাগান ও গারুচিরায় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রচারাভিযান চালান বিধায়ক মনোজ টিগ্গা। মনোজবাবুর সঙ্গে ছিলেন ১৬ নম্বর মণ্ডলের সভাপতি অ্যাশকুমার তামাং, দুই সাধারণ সম্পাদক রাহুল লোহার ও সঞ্জয় মণ্ডল।

- Advertisement -

শনিবার মাদারিহাটের ৩টি মণ্ডলেই এলাকার মোর্চা প্রমুখ, শক্তিকেন্দ্র প্রমুখ ও দলের বিভিন্ন পদাধিকারীদের নিয়ে তিনটি পৃথক সাংগঠনিক বৈঠক আয়োজিত হয়। বৈঠকে ভোটের রণকৌশল নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন তাঁরা। বীরপাড়ার ধর্মশালায় আয়োজিত ১৬ নম্বর মণ্ডলের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক মনোজ টিগ্গা। একই দিনে রামঝোরা চা বাগানের হিন্দি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৭ নম্বর মণ্ডল ও মাদারিহাটের দলীয় কার্যালয়ে ১৮ নম্বর মণ্ডলের সাংগঠনিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বিজেপি সূত্রের খবর, ঢেকলাপাড়া,  বান্দাপানি, লংকাপাড়ার মতো দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ চা বাগানগুলিতে বাগান বন্ধ থাকার বিষয়টিকে এবারও ভোটের ইস্যু করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, বর্তমানে ডানকানের সাতটি চা বাগানের মধ্যে ছয়টি চা বাগান অন্য কোম্পানির হাত ধরে খুলেছে। বন্ধ রয়েছে শুধু লংকাপাড়া চা বাগান। এছাড়া ২০১৩ সাল থেকে বান্দাপানি ও ২০০২ সাল থেকে ঢেকলাপাড়া চা বাগান দু’টি বন্ধ রয়েছে।

মাদারিহাটের বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গা বলেন, ’চা বাগানের শ্রমিক কর্মচারীরা বিজেপির পাশে রয়েছেন বলেই বারবার ভোটের ফলাফলে স্পষ্ট হয়েছে। লংকাপাড়া, ঢেকলাপাড়া, বান্দাপানি চা বাগান আজও খুলতে পারেনি রাজ্য সরকার। ওই বাগানগুলির শ্রমিকরা আর্থিক সমস্যায় জর্জরিত। ইভিএমেই তার প্রতিফলন ঘটবে।‘

তৃণমূলের জেলা সম্পাদক রশিদুল আলম বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৫ বছর আগে প্রতিশ্রুতি দিয়ে গেলেও মাদারিহাটের কোনও চা বাগান খোলার ব্যাপারে ভূমিকা পালন করেননি। ডানকানের ছয়টি চা বাগান খুলেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের উদ্যোগেই।‘

মাদারিহাটের বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গার পালটা প্রশ্ন, ‘বান্দাপানি চা বাগানটি ২০১৪ সালে অধিগ্রহণ করেছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু আজ পর্যন্ত সেটি খুলল না কেন?’