ফালাকাটা উপনির্বাচনে বিজেপির টার্গেট ৫০ শতাংশ ভোট

350

ফালাকাটা: ফালাকাটা উপনির্বাচনকে পাখির চোখ করে ময়দানে নেমেছে সব রাজনৈতিক দল। জেতা আসন ধরে রাখতে মরিয়া তৃণমূল কংগ্রেস। তবে বিজেপি এই আসনে ৫০ শতাংশ ভোটকে টার্গেট করে নিয়েছে।

গত নির্বাচনগুলির প্রাপ্ত ভোটের নিরিখে ফালাকাটায় বিজেপির গ্রাফ অনেকটাই উর্ধমুখী। আবার তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাপ্ত ভোটের গ্রাফ ক্রমশ নিম্নমুখী। সূত্রের খবর, গ্রাফের এই সমীকরণ দেখেই ফালাকাটায় ৫০ শতাংশ ভোট পাওয়ার টার্গেট বেধে দিয়েছে বিজেপির কেন্দ্র ও রাজ্য কমিটি। তবে জেলা নেতৃত্বের দাবি, ৫০ থেকে ৫৫ শতাংশ ভোটের টার্গেট নিয়ে দলের রুপরেখা তৈরি হয়েছে। এদিকে বিজেপির ভোটের শতাংশের এই টার্গেট নিয়ে মাথা ব্যথা নেই তৃণমূলের। দলের নেতাদের পালটা দাবি, ভোটের শতাংশ নিয়ে বিজেপি দিবাস্বপ্ন দেখছে।

- Advertisement -

২০১১ সালে পরিবর্তনের ধাক্কায় ফালাকাটায় বামফ্রন্টের শক্ত ঘাঁটি ভেঙে যায়। বিপুল ভোটে জয়ী হন তৃণমূলের অনিল অধিকারি। ওই সালে তৃণমূল পেয়েছিল ৪৭ শতাংশ ভোট। তখন সাংগঠনিক শক্তি সেরকম না থাকলেও ৬ শতাংশ ভোট পেয়েছিল বিজেপি। তবে পাঁচ বছর পর ২০১৬-র বিধান সভা নির্বাচনে তৃণমূলের ভোট কিছুটা কমলেও বিজেপির ভোট বেড়ে যায়। সেবার বিজেপির ভোট বেড়ে হয় ১৫ শতাংশ। অনিল অধিকারি দ্বিতীয়বারের জন্য বিধায়ক নির্বাচিত হলেও ২০১৬ সালে পান ৪৩ শতাংশ ভোট। তবে ২০১৮-র পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকেই ফালাকাটায় বিজেপির উত্থান শুরু হয়। এই বিধান সভা কেন্দ্রের তিনটি গ্রাম পঞ্চায়েতে সংখ্যাগরিষ্ট আসন পায় বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের চূড়ান্ত সাফল্য আসে গত লোকসভা নির্বাচনে।

যদিও গত লোকসভায় ফালাকাটা বিধান সভা কেন্দ্র থেকে ৫০ শতাংশেরও বেশি ভোট পায় বিজেপি। তবে শতাংশের হিসেবে তৃণমূলের প্রাপ্ত ভোটের খুব বেশি হেরফের হয়নি। ২০১৬-র বিধান সভার নিরিখে ২০১৯ সালে তিন শতাংশ ভোট কমে তৃণমূল পায় প্রায় ৪০ শতাংশ ভোট। গত বছর মূলত বামের ভোট পেয়েই ফালাকাটায় বাজিমাত করে বিজেপি। এই উপনির্বাচনেও রামের মূল ভরসা বাম। তবে এবার বাম ভোট পুরোপুরিভাবে বিজেপি পাবে কী না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। কিন্তু বিজেপির কেন্দ্র ও রাজ্য কমিটি ধারাবাহিকভাবে প্রাপ্ত ভোটের উর্ধমুখী গ্রাফ দেখে ফালাকাটায় টার্গেট করে দিয়েছে। সেই টার্গেট নিয়েই কাজ করছে বিজেপির একাধিক সংগঠন।

সূত্রের আরও খবর, বিজেপি সহ দলের সাতটি শাখা সংগঠন প্রকাশ্যেই ফালাকাটায় ময়দানে নেমেছে। আরএসএস নিয়ন্ত্রিত আরও ১০টি সংগঠন গোপনভাবে বিজেপির হয়ে কাজ করছে। আবার বিজেপির ১৩ জন নির্বাচনি পর্যবেক্ষক, বুথ স্তরে পাতা প্রমুখ, বুথ পালকরাও কাজ করছেন। এককথায় পুরো ছক কষে ময়দানে নেমেছে গেরুয়া শিবির।

দলের জেলা সাধারণ সম্পাদক দীপক বর্মন বলেন, ‘কেন্দ্র ও রাজ্য স্তর থেকে ফালাকাটায় ৫০ শতাংশ ভোটের টার্গেট দেওয়া হয়েছে। তবে আমরা ৫০-৫৫ শতাংশ ভোট পাওয়ার লক্ষ্যে কাজ করছি। সাংগঠনিক রুপরেখা অনুযায়ী এগোনো হচ্ছে।’

এদিকে তৃণমূলের ফালাকাটা ব্লক সাধারণ সম্পাদক সুভাষ রায় বলেন, ‘শতাংশের হিসেব কষে বিজেপি দিবাস্বপ্ন দেখছে। শতাংশের নিরিখে গত লোকসভায় আমাদের ভোট খুব বেশি কমেনি। এক বছরে বহু মানুষ দলে যোগ দিয়েছে। পরিস্থিতি অনেক বদলেছে। সংখ্যাগরিষ্ট মানুষ তৃণমূলের সাথেই রয়েছে।’