ঢাকার মসজিদে ভয়াবহ এসি বিস্ফোরণে মৃত ১১

706
সংগৃহীত

ঢাকা: মসজিদে ভয়াবহ এসি বিস্ফোরণে মৃত্যু হল ১১ জনের। শুক্রবার রাতে ঢাকার অদূরে নারায়ণগঞ্জের বাইতুল সালাত জামে মসজিদে ভয়াবহ এসি বিস্ফোরণ হয়। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, এই ঘটনায় এখনও ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। হাসপাতাল সূত্রে খবর, দগ্ধ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন অনেকে। অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আহতদের সবরকম চিকিৎসা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল রাতে মসজিদে নমাজ শেষে বিস্ফোরণটি হয়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এশার নমাজের সময় হঠাৎ বিকট শব্দে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারে বিস্ফোরণ হয়। সঙ্গে সঙ্গে মসজিদের ভিতরে থাকা এসিতেও বিস্ফোরণ হয়। মুহূর্তে আগুন ধরে যায় মসজিদে। জানা গিয়েছে, মসজিদের পাশ দিয়ে যাওয়া গ্যাস পাইপলাইনে বেশ কয়েকদিন ধরেই লিকেজ ছিল। কিন্তু সারাই করার কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। গ্যাসের কারণে আগুন আরও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এক দমকলকর্মী জানান, ঘটনার পর ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজে নামে। আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে তার আগে স্থানীয়দের তরফে বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিনের বিস্ফোরণের তীব্রতা এতোটাই বেশি ছিল যে মসজিদের সিলিং ফ্যানগুলি বেঁকে গিয়েছে। জানালার কাঁচ চূর্ণ-বিচূর্ণ হয়ে রয়েছে। এখনও পর্যন্ত ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন অনেকে। ঢাকার শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে এখনও পর্যন্ত ৩৭ জনকে ভর্তি করা হয়েছে। তবে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মসজিদের মেঝের নীচ দিয়ে গ্যাসের লাইন গিয়েছে। দমকল কর্মীরা জল দেওয়ায় গ্যাসের বুদবুদ বের হচ্ছিল। গ্যাসের লিকেজের কারণে এই ভয়াবহ পরিস্থিতি বলে মনে করা হচ্ছে। তবে ঠিক কী কারণে এই ঘটনা তা নিয়ে তদন্ত চলছে।