কলম্বো, ২১ এপ্রিলঃ ইস্টারের ভোরে রক্তাক্ত শ্রীলঙ্কা। কলম্বোর সেন্ট অ্যান্টনিজ চার্চ, সেবাস্টিয়ান চার্চ এবং বিলাসবহুবল সানগ্রিলা, সিনামন গ্র্যান্ড ও কিংসবেরি হোটেল সহ মোট ছয় জায়গায় ধারাবাহিক বিস্ফোরণে মৃত্যু হল অন্তত ৫২ জনের। আহত হয়েছেন অন্তত ২৮০ জন। তাঁদের মধ্যে বহু বিদেশি পর্যটকও আছেন। কলম্বোর ন্যাশনাল হাসপাতাল জানিয়েছে, একের পর এক গাড়িতে আহতদের নিয়ে আসা হচ্ছে। আহতের সঠিক সংখ্যা বলা যাচ্ছে না।

জানা গিয়েছে, রবিবার সকালে প্রথম দুটি বিস্ফোরণ হয় কলম্বোর সেন্ট অ্যান্টনিজ চার্চ ও নেগোম্বোর সেবাস্টিয়ান চার্চে।বিস্ফোরণের পরই সেবাস্টিয়ান চার্চের ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয়, চার্চে বোমা বিস্ফোরণ হয়েছে। আপনার পরিবারের কেউ যদি এখানে থাকেন তাহলে সাহায্য করতে তাড়াতাড়ি আসুন। টুইটারে একাধিক পোস্টে লেখা হয়, সেন্ট অ্যান্টনিজ চার্চ প্রাঙ্গণে বিস্ফোরণ হয়েছে। এখানকার চার্চ কর্তৃপক্ষও ফেসবুক পেজে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছে। ক্রিশ্চান ধর্মাবলম্বীদের কাছে ইস্টার অন্যতম বড়ো অনুষ্ঠান। তাই ভোর থেকে চার্চগুলিতে প্রার্থনার জন্য বহু মানুষ জড়ো হয়েছিলেন। তাঁদের মধ্যে বিদেশি পর্যটকরাও ছিলেন দলে দলে। আকস্মিক বিস্ফোরণে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন সবাই। ভিড় থাকায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও বেশি হয়েছে।

শ্রীলঙ্কা প্রশাসন সূত্রে খবর, গোটা শ্রীলঙ্কা জুড়েই জারি করা হয়েছে হাই অ্যালার্ট। কলম্বোয় মোতায়েন করা হচ্ছে সেনা। সিনামন গ্র্যান্ড হোটেলের কাছেই শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিঙ্ঘের বাসস্থান। ইতিমধ্যেই জরুরি বৈঠক ডেকেছে প্রশাসন।   যদিও এখনও কোনও জঙ্গি সংগঠন এই ঘটনার দায় স্বীকার করেনি।

সেন্ট সেবাস্টিয়ান চার্চের ফেসবুক পোস্ট থেকে সংগৃহীত ছবি।