বিজেপি নেতার মৃত্যুতে উত্তপ্ত দিনহাটা, টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ

121

দিনহাটা: বিজেপি নেতাকে মৃত্য়ুর ঘটনায় উত্তপ্ত দিনহাটা। বিজেপি নেতা অমিত সরকারকে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে বুধবার বেলা ১১টা নাগাদ শহরের পাঁচ মাথার মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করলেন বিজেপির নেতা-কর্মীরা। পাশাপাশি, শহরের দোকানপাট, হাট-বাজার সব বন্ধ করে দেন তাঁরা। বেলা বাড়তে আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকার পরিস্থিতি। বিজেপির কর্মী-সমর্থকরা দিনহাটা শহরের তৃণমূলের পার্টি অফিসে ভাঙচুর চালান বলে অভিযোগ ওঠে। এরপর তাঁরা দিনহাটা শহরে তৃণমূলের সমস্ত দলীয় পতাকা খুলে ফেলে শহরে পাঁচ মাথার মোড়ে আগুন লাগিয়ে দেন। ঘটনাস্থলে পৌঁছোয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। অবরোধ তুলতে এলে পুলিশের সঙ্গে বামেলা বেধে যায় বিক্ষোভকারীদের। দু’পক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে বলে অভিযোগ। ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসের শেলও ছোড়া হয়। এই ঘটনায় বিজেপির কয়েকজন কর্মী জখম হয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে।

এদিন সকালে বিজেপি নেতা অমিত সরকারের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। তিনি বিজেপির দিনহাটা শহর মণ্ডল সভাপতি ছিলেন। দিনহাটার ডাকবাংলা পাড়ার পশু হাসপাতালের বারান্দায় তাঁকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান স্থানীয়রা। ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছোলে তাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখান বিজেপির নেতা, কর্মী ও সমর্থকরা। ওই বিজেপি নেতাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলছে বিজেপি। তাদের অভিযোগ, তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহের নির্দেশে পরিকল্পনা করে এই খুন করা হয়েছে। বিজেপির সংখ্যালঘু নেতা আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘অমিত সরকারকে পরিকল্পনা করে খুন করা হয়েছে। এরই প্রতিবাদে পথ অবরোধ করা হয়েছে।’

- Advertisement -

যদিও অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহ। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলেই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে বলে জানান তিনি।

এদিকে, এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছেন দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক। পুলিশ তৃণমূল কংগ্রেসের দলদাস হয়ে কাজ করছে বলেও অভিযোগ তোলেন নিশীথ।