গঙ্গারামপুরে বিজেপির বুথ সভাপতির রহস্যমৃত্যু, কাঠগড়ায় তৃণমূল

326

গঙ্গারামপুর: বিজেপির বুথ সভাপতির রহস্যমৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর থানার সুকদেবপুর শালবাড়ি এলাকায়। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম স্বাধীন রায় (৫৪)। ঘটনার পর মৃতের পরিবার হাসপাতালে দাঁড়িয়ে খুনের অভিযোগ তুলেছে। বিজেপিও তৃণমূলের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তুলেছে। গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ দুজনকে আটক করে তদন্তে নেমেছে।

গঙ্গারামপুর ব্লকের সুকদেবপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের হোসেনপুর বাঁশপাড়া এলাকার বাসিন্দা স্বাধীন রায়। পেশায় তিনি সবজী বিক্রেতা। পাশাপাশি স্বাধীনবাবু কুশমন্ডি বিধানসভার অন্তর্গত ১৬৬ নম্বর বুথের বিজেপির সভাপতি। স্বাধীনবাবুর স্ত্রী বেলি রায় স্থানীয় মহিলা মোর্চার নেত্রী। বেলিদেবী ২০১৮ সালে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দাঁড়িয়েছিলেন। প্রতিদিনের মত এদিন সকালে স্বাধীনবাবু সবজী কিনতে বাড়ি থেকে বের হন। অভিযোগ, সবজি বিক্রি করে এক বন্ধুর সঙ্গে তিনি নেশার ঠেকে গিয়েছিলেন। কিন্তু দুপুরে এলাকার মানুষজন স্বাধীনবাবুর মৃতদেহ একটি ঝোঁপের ধারে পড়ে থাকতে দেখেন। ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়।

- Advertisement -

গঙ্গারামপুর থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে যায়। মৃতদেহটি উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে তারা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান বিজেপির কুশমন্ডি বিধানসভার কনভেনার বিপ্লব দাস, জেপি-৩ এর বিজেপির মণ্ডল সভাপতি রঞ্জিত রায়, বিজেপি নেতা তাপস রায় প্রমুখ। ঘটনার পরপরই মৃতের পরিবার ও বিজেপির পক্ষ থেকে খুনের অভিযোগ তোলা হয়। মৃতের দাদা পলাশ রায় বলেন, সকালে ভাইয়ের সঙ্গে দেখা হয়েছে। তারপর দুপুরে জানতে পারি, ফাঁকা জায়গায় একটা বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে ঝোঁপের ধারে ওর দেহ পড়ে রয়েছে। ওঁকে গলা টিপে মেরে ফেলে রাখা হয়েছে।

তাঁর অভিযোগ, বাইকে দুর্ঘটনা ঘটলে কেন মৃতদেহ থেকে কিছুটা দূরে বাইক পড়েছিল। তিনি বলেন, আমার ভাই বিজেপি দল করত। যারা এই কান্ড ঘটিয়েছে তারা যেন শাস্তি পায়। মৃতের আরেক দাদা ফুলেশ্বর রায় বলেন, আমার ভাই সবজী বিক্রি করেন। আজকে সকালে বাড়ি থেকে চার কিলোমিটার দূরে শালবাড়ি বলে একটা জায়গায় গিয়েছিল। সেখানে চা খেয়েছিল। তার কিছুক্ষণ পর সুনীল নামে একজনের সঙ্গে নেশার ঠেকে গিয়েছিল। সেখান থেকে বাড়ি ফেরার পথে সুনীল আমার ভাইয়ের সঙ্গে ছিল। যেখানে মৃতদেহ পড়েছিল সেখান থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে বাইক ছিল। তাঁর দাবি, আমার ভাইকে গলা টিপে মারা হয়েছে।

বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার বলেন, কুশমন্ডি বিধানসভার অন্তর্গত ১৬৬ নম্বর বুথের সভাপতি স্বাধীন রায়। তাঁকে আজকে তৃণমূল কংগ্রেসের হার্মাদরা গামছা দিয়ে গলা টিপে খুন করেছে। বারবার একই ঘটনা ঘটছে। সেই পুরুলিয়ার ত্রিলোচন মাহাতো থেকে শুরু করে আমাদের এখানে বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায় এবং আরও বহু কর্মীকে এভাবে মারা হচ্ছে। তৃণমূল কংগ্রেস যদি ভাবে এভাবে আমাদের কর্মীদের মেরে বিজেপিকে আটকানো যাবে, তাহলে তৃণমূল কংগ্রেস মূর্খের স্বর্গে বাস করছে। আমরা এর প্রতিরোধ করব। উপযুক্ত সময় এলে এর প্রতিকারও করব।

গঙ্গারামপুর থানার আইসি পূর্নেন্দুকুমার কুন্ডু বলেন, সুকদেব শালবাড়ি এলাকা থেকে একটি মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করা হয়েছে। বিধায়ক তথা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি গৌতম দাস বলেন, যে কোনও মৃত্যুই দুঃখজনক। তৃণমূল কংগ্রেস কোনওভাবেই এর সঙ্গে যুক্ত হয়। এটা দুর্ঘটনা বলেই মনে হচ্ছে। পুলিশ তদন্ত করছে। গৌতমবাবু আরও বলেন, যদি দুর্ঘটনা হয় তার এক রকম ব্যবস্থা, যদি খুন হয় তাহলে পুলিশ খুনিদের যেন ধরতে পারে। তবে যারা আগেই এই ঘটনায় রাজনৈতিক রং লাগিয়ে দিয়ে কথাবার্তা বলছে, আমরা মনে হয় তারা খুনিদের আড়াল করতে চাইছে। তাঁর পালটা অভিযোগ, বিজেপিই নিজেদের কর্মীদের মেরে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে চাইছে।