বলিউড সেলেব দেখতে চান,  মালদ্বীপ চলে যান

86

মাধুরী দীক্ষিত, ক্যাটরিনা কাইফ, আলিয়া ভাট? নাকি রণবীর কাপুর, অর্জুন কাপুর, টাইগার শ্রফ? স্বপ্নের কোন বলিউড নায়ক-নায়িকাকে আপনি এক হাত দূরত্বে দাঁড়িয়ে দেখতে চান? যদি সত্যিই চান, তা হলে জেনে রাখুন আপনার সেই বাসনা কিছুদিন আগেও যেখানে ছিল স্বপ্ন, আজ তা বাস্তব। কারণ সোশ্যাল মিডিয়া সূত্র জানান দিচ্ছে  গোয়া নয়, মরিশাস নয়। করোনা আবহে বলিউড স্টারদের এই মুহূর্তে নির্জনতার মাঝে অলস ভালোলাগা কাটানোর প্রিয় ঠিকানা দ্বীপঘেরা মালদ্বীপ। প্রেমিক-প্রেমিকা, স্বামী-সন্তান নিয়ে ছুটি কাটানোর সম্মোহ হাতছানি, নীল-নির্জন জলরাশির মাঝে গড়ে ওঠা এই দ্বীপ। যেখানে পৌঁছলে, এই মুহূর্তেই আপনার সঙ্গে দ্বীপের সোনালি সৈকতে হয়তো দেখা হয়ে যেতে পারে ব্রহ্মাস্ত্র ছবির নায়ক-নায়িকা রণবীর কাপুর-আলিয়া ভাটের সঙ্গে। শুধু রিল লাইফে নয়, রিয়েল লাইফেও প্রেমিক যুগলে সবেমাত্র মুক্ত হয়েছেন করোনা সংক্রমণ থেকে। শহর মুম্বইয়ে করোনার কারণে এখন ১৪৪ ধারা জারি হতেই, জুটিতে তাই উড়ে গিয়েছেন মালদ্বীপ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে মাস্ক মুখে তাঁদের বিমান ধরার সেই ছবি।

এই মাসের শুরুতেই স্বামী ডাক্তার নেনে, দুই পুত্র আরিন-রায়ানকে নিয়ে নীল জলরাশির দ্বীপের এক রিসর্টে ছুটি কাটিয়ে এলেন ধক ধক নায়িকা মাধুরী দীক্ষিত। বিয়ের বাইশ বছর বাদে। বিলাসবহুল রিসর্টে মায়াবী রাতে পরিবারের সঙ্গে ক্যান্ডেললিট ডিনারের সেই ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে দিল তো পাগল হ্যায় নায়িকা লিখেছেন, নাথিং লাইক আ ক্যান্ডেললিট ডিনার… চিয়ার্স।

- Advertisement -

সম্প্রতি নীল জলের সোনালি বালিতে স্বল্পাবাসে ছুটি কাটাতে দেখা গিয়েছে বাগী থ্রি ছবির নায়ক-নায়িকা টাইগার শ্রফ, দিশা পাটানিকেও। যাঁদের প্রেম এই মুহূর্তে বলিউডে দারুণ চর্চার বিষয়। ইনস্টাগ্রামে নীল আকাশ-জলের প্রেক্ষাপটে সোনালি বালিতে  সোনালি বিকিনিতে দিশার সেই ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট পড়তেই লাইকের ঝড় তুলেছেন তাঁর অসংখ্য গুণমুগ্ধ। ফ্যানদের পছন্দ, ভালোলাগার ঢেউ কম আছড়ে পড়েনি মন্দিরা বেদির ইনস্টাগ্রামের  পোস্টেও। সম্প্রতি বান্ধবীদের নিয়ে জন্মদিনের ছুটি কাটাতে মালদ্বীপ গিয়েছিলেন মন্দিরা। অনাবিল সেই আনন্দে গোলাপি রঙের বিকিনিতে  খোলামেলা শরীরের চোখ ধাঁধানো বেশকিছু ছবি পোস্ট করেছিলেন মন্দিরা। যা দেখে মুগ্ধ তাঁর গুণমুগ্ধরা।

দ্বীপঘেরা সমুদ্রের নীলাভ জলে কখনও গেরুয়া, কখনও সাদা-সবুজ স্টাইপ বিকিনিতে কেদারনাথ ছবির নায়িকা সারা আলি খানের খোলামেলা ছবি ইনস্টাগ্রামে দেখে সম্মোহিত হয়ে পড়েছেন তাঁর গুণমুগ্ধরা। অমন ছবি দেখে উঠেছে সমালোচনার মৃদু ঝড়ও। সম্প্রতি বিশিষ্ট লেখিকা শোভা দে তাঁর পোস্টে লিখেছেন, এই কোভিড পরিস্থিতির মাঝে যাঁরা মালদ্বীপে ছুটি কাটাচ্ছেন, মনে রাখবেন এটা আপনাদের কাছে হলিডে। বাকি সকলের কাছে কিন্তু অতিমারি। তাই আপনাদের আনন্দের ছবি দয়া করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করবেন না।

শোভা এমন কথা লিখলেও তা শুনছে কে? সোশ্যাল মিডিয়ার ইনস্টাগ্রাম সূত্র জানান দিচ্ছে, করোনা মহামারির কারণে দীর্ঘদিন ঘরবন্দী থাকার পর, বাইরে বেরনোর অনুমতি মিলতেই বলিউডের সেলেবরা এই মুহূর্তে ঝাঁকে ঝাঁকে পাড়ি জমাচ্ছেন ভারতের দক্ষিণ-পূর্বে ভারত মহাসাগরে ভেসে থাকা ছোট্ট এই নির্জন দ্বীপে। মালাইকা অরোরা-অর্জুন কাপুর, ক্যাটরিনা কাইফ, টাইগার-দিশা, জাহ্নবী কাপুর, শ্রদ্ধা কাপুর, মাধুরী, সারা আলি খান… বলিউডের নায়ক-নায়িকাদের স্বল্পাবাসের ছবিই শুধু সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ছে না। সম্প্রতি মালদ্বীপের সাগরজলে স্বল্পাবাসে হাত ধরাধরি করে ভেসে থাকতে দেখা গিয়েছে টলিউডের নায়ক-নায়িকা প্রেমিকযুগল অঙ্কুশ-ঐন্দ্রিলাকেও। মালদ্বীপের দুর্নিবার হাতছানিকে যেন কিছুতেই উপেক্ষা করতে পারছেন না বলি-টলির তারকারা।

ফলে অনেকের মনেই প্রশ্ন জাগছে গোয়া-মরিশাস ভুলে, সকলের মনে এখন মালদ্বীপ কেন? তার কারণ অবশ্য রয়েছে। কারণ আর পাঁচটা দ্বীপের মতো মালদ্বীপে মানুষের ভিড় নেই। প্রায় বারোশো কোরাল দ্বীপের যে কোনও দ্বীপে, এখানকার বিলাস-রিসর্টে আয়াসে কাটানো যায় নির্জনতার ভালোলাগা। রিসর্টের কড়া নিরাপত্তায় কঠোরভাবে মেনে চলা হয় কোভিড গাইডলাইন। ভারতীয় পাসপোর্ট থাকলে এখানে কোয়ারেন্টাইনে থাকবারও কোনও বিধিনিষেধ নেই। উপরি মেলে তিরিশ দিনের ফ্রি ভিসা। শুধু তাই নয়, এপ্রিল থেকে নভেম্বর, এখানকার হাল্কা গরমে মেলে স্বস্তির আবেশ। রূপসীদের রূপটানেও নেই ঝামেলা।

মালদ্বীপের পর্যটন সূত্র জানান দিচ্ছেন, করোনা পরিস্থিতিতে যেখানে অন্যান্য পর্যটন স্থানে ভিড় কমছে পর্যটকদের, সেখানে মালদ্বীপে নতুন বছরের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে শুধু ভারতীয়রাই ভিড় জমিয়েছেন ৪৪ হাজার! যা গত বছরের হিসেবে প্রায় দ্বিগুণ। মনমাতানো প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা দ্বীপই তাই এখন হয়ে উঠেছে তারকা মায় তামাম পর্যটনপ্রেমীর প্রিয় স্পট। তাই সেই স্পটে গিয়ে যদি প্রিয় তারকাকে চাক্ষুষ করতে চান, তা হলে মালদ্বীপ পৌঁছে যান।