বিজেপি কর্মীর বাড়ির সামনে থেকে বস্তা ভর্তি বোমা উদ্ধার

72

রায়গঞ্জ: বিজেপি কর্মীর বাড়ির পাশে বস্তা ভর্তি বোমা উদ্ধারের ঘটনায় বুধবার চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে কালিয়াগঞ্জ বিধানসভার বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ গোয়ালপাড়ায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যায় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। বিজেপির অভিযোগ, এলাকায় অশান্তি ও সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করতে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা বোমা রেখে গিয়েছে। তৃণমূলের পালটা অভিযোগ, বিজেপির পায়ের তলার মাটি সরে গিয়েছে। তাই নিজেরা বোমা রেখে শাসকদলের নামে বদনাম রটাচ্ছে। এদিকে, বোমা উদ্ধারের পাশাপাশি ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শুরু হবে ভোটগ্রহণ। তার ঠিক আগে বুধবার দক্ষিণ গোয়ালপাড়ার বিজেপি কর্মী বিকাশ সরকারের বাড়ির সামনে থেকে উদ্ধার হল বস্তা ভর্তি তাজা বোমা। পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় যায় কমব্যাট ফোর্স ও কেন্দ্রীয় বাহিনী। জেলা বিজেপি নেতা বিশ্বজিৎ লাহিড়ি জানান, ওই এলাকায় তৃণমূলের যে পঞ্চায়েত সদস্য রয়েছেন তিনি ২০১৮ সালে বুথ জ্যাম করে, গুলি ও বোমা মেরে, ছাপ্পা ভোট দিয়ে জিতেছেন। নাজিমুল রহমান নামে ওই পঞ্চায়েত সদস্য এলাকার ত্রাস। তাঁকে গ্রেপ্তার করলেই তাঁর সঙ্গে থাকা কর্মীদের কাছ থেকে প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র ও বোমা উদ্ধার হবে। পুলিশ সুপারকে ঘটনার বিষয়ে জানানো হয়েছে।

- Advertisement -

যদিও তৃণমূলের জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগারওয়াল জানান, তাঁদের দলে কোনও দুষ্কৃতী নেই। বিজেপিতেই দুষ্কৃতী রয়েছে। ভোটের মুখে বাজার গরম করার জন্য এসব মন্তব্য করছেন বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপি কর্মী বিকাশ সরকারের স্ত্রী মল্লিকা সরকার বলেন, ‘সকালে বাড়ির আবর্জনা ফেলতে এসে দেখতে পাই একটি বস্তার মধ্যে বোমা রাখা আছে।’ মল্লিকা দেবীর অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এলাকায় সন্ত্রাস ও ভয়ের বাতাবরণ তৈরি করতেই বোমা রেখে গিয়েছে।

অন্যদিকে, স্থানীয় তৃণমূল নেতা তথা পঞ্চায়েত সদস্য নাজিমুল রহমান জানান, ২৬৬ নম্বর বুথের ৯০ শতাংশ ভোটার তৃণমূল কংগ্রেসের সমর্থক। বিজেপি পরিকল্পিতভাবে ওই ঘটনা ঘটিয়ে এখন তৃণমূলের নাম দিচ্ছে। এদিকে, পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছে। তদন্ত চলছে।