লখনউ, ১৮ জানুয়ারিঃ ফিরে এল গুরুগ্রামের প্রদ্যুম্ন হত্যার স্মৃতি। লখনউয়ের একটি বেসরকারি স্কুলের প্রথমে শ্রেণীর পড়ুয়ার বুকে ছুরি বসিয়ে দিল ওই স্কুলেরই ষষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রী। গুরুতর আহত সাত বছরের ওই পড়ুয়া কিং জর্জেস মেডিকেল ইউনিভারসিটিতে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করছে।

মঙ্গলবার ত্রিবেণীনগরের ব্রাইটল্যান্ড ইন্টার কলেজ স্কুলে ঘটনাটি ঘটে। জানা গিয়েছে, স্কুলের টয়লেটে ওই পড়ুয়ার ওপর হামলা চালায় ওই ছাত্রীটি। প্রথমে মারধর করা হয়, তারপর ছুরি দিয়ে বুকে আঘাত করে। হাসপাতালে আহত পড়ুয়া জানিয়েছে, একজন শিক্ষক ডাকছে বলে ওই ছাত্রী তাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে বাথরুমে ঢোকায়, তারপর মারধর শুরু করে। এরপর বুকে ধারালো কিছু ঢুকিয়ে দেয়। সে আরও জানিয়েছে, মারার সময় ছাত্রীটি বলছিল, তাকে মারলে স্কুল তাড়াতাড়ি ছুটি হয়ে যাবে। এরপর স্কুলের তরফে আহত ছাত্রটিকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। যদিও তার বাড়িতে জানানো হয়েছিল, দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে সে। এরপর বুধবার কিং জর্জেস মেডিকেল ইউনিভারসিটির তরফে আসল ঘটনা প্রকাশ্যে আনা হয়। নিজেদের ঢাকতে পুলিশে খবর দেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ। পুলিশ ওই স্কুলটিকে শো কজ নোটিশ পাঠিয়েছে। অভিযুক্ত ছাত্রীটিকেও আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এদিকে, ঘটনার কথা জানাজানি হতেই স্কুলে গিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে অভিভাবকরা। স্কুলের তরফে পুলিশকে সসবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হলেও কেন তারা ঘটনার কথা চেপে গিয়েছিল, তা জানাতে চায়নি।