ভোট বয়কট সমাধান নয়! বন্ধ কারখানার কর্মী পরিবারের পাশে সায়নী

65

আসানসোল: ২০১৮ সালে বন্ধ হয়ে গিয়েছে বার্ণপুরের বার্ণ স্ট্যান্ডার্ড কারখানা। সেই কারখানার কর্মীরা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে থাকেন বার্ণপুরের ওয়াগন কলোনিতে। দীর্ঘদিন ধরে ওয়াগন কলোনিতে বিদ্যুৎ ও পানীয়জলের সমস্যা রয়েছে। বাসিন্দারা এবার বিধান সভা নির্বাচনে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছেন। এই ওয়াগন কলোনি আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে। এই কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের তারকা প্রার্থী সায়নী ঘোষ মনে করেন, ভোট বয়কট কোন সমস্যা সমাধান করে না। ভোট দিয়ে মানুষের জবাব দেওয়া উচিত। শুক্রবার দুপুরের আসানসোল বাজার লাগোয়া জিটি রোডে তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনে সায়নী ঘোষ বলেন, ‘আমি ওয়াগন কলোনির বাসিন্দাদের সঙ্গে দেখা করব। তাদের সমস্যার শুনে সমাধান করার চেষ্টা করব। তবে সমাধান করে দেব, এমন প্রতিশ্রুতি দিতে পারব না। কেন না আমার ব্যক্তিগত অত ক্ষমতা নেই। আর ঐ সংস্থা কেন্দ্র সরকারের বলেও এড়িয়ে যাব না।’

এই কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী রাজ্য মহিলা মোর্চার সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল শাসক দলের প্রার্থীকে কোন প্রতিপক্ষ বলে মানতে চাননা। এই প্রসঙ্গে সায়নী ঘোষ বলেন, ‘অগ্নিদি আমার সিনিয়র। আসানসোলের ভূমিকন্যা হয়ে, তিনি যতদিন কলকাতায় আছেন, ততদিন আমিও কলকাতায় আছি। আর উনি তো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একমাত্র প্রতিপক্ষ বলে মনে করেন। তাই তাকে নিয়ে আমি আর কি বলবো। মানুষ তাঁর রায়ের মাধ্যমে এর জবাব দেবেন।’

- Advertisement -

আসানসোল একটা শিল্পাঞ্চল। সেই হিসাবে শাসক দলের তারকা প্রার্থীর এই শিল্পাঞ্চল নিয়ে কি ভাবনা? তিনি বলেন, ‘শিল্প অবশ্যই হবে। তবে আমরা চাই সার্বিক উন্নয়ন। দিদি সবদিক নিয়ে যা ভাবার ভাবছেন। আমরা তা শুধুমাত্র এক্সিকিউট করব।’

এদিন দলের কার্যালয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত দিয়ে প্রকাশিত হওয়া নির্বাচনি ম্যানিফেস্টো সায়নী ঘোষ সবিস্তারে পড়েন। সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে ছিলেন দলের রাজ্য সম্পাদক ভি শিবদাসন ওরফে দাসু, প্রাক্তন মেয়র লক্ষ্মণ ঠাকুর।