পানীয়জল ও বিদ্যুতের সুষ্ঠ সরবরাহের দাবিতে ভোট বয়কটের ডাক

93

আসানসোল: বছর ঘোরে। ভোট আসে। ভোট যায়। কিন্তু তাঁরা যে নির্জলা হয়ে অন্ধকারের মধ্যে রয়েছেন সেই ছবির কোনও পরিবর্তন হয়না। তাই এবার বিধানসভা ভোটের ঠিক আগে ভোট বয়কটের ডাক দিলেন তিন বছর আগে আসানসোলের বার্ণপুরের বন্ধ হয়ে যাওয়া বার্ণ স্ট্যান্ডার্ড কারখানার ওয়াগন কলোনির বাসিন্দারা।

এই এলাকাটি আসানসোল পুরনিগমের ৫৬ নং ওয়ার্ড ও আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে। গত ৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে আসানসোল পুরনিগম তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে রয়েছে। গত বিধানসভা নির্বাচনে আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রে জিতেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়।
বার্ণপুরের এই কারখানা একটা সময় শুধু রাজ্যের নয়, দেশের অন্যতম কারখানা ছিল। কিন্তু বরাত পাওয়া সহ নানা কারণে এই কারখানা রুগ্ন হয়ে পড়ে। ২০১৮ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার এই কারখানাটি বন্ধ করে দেয়। তখন সেখানে সবমিলিয়ে কমপক্ষে ১৮০০ কর্মী ছিল। বর্তমানে বার্ণপুরের ওয়াগন কলোনিতে এই কারখানার কর্মীরা পরিবার নিয়ে থাকেন। এই মূহুর্তে এই কলোনির ৮১০টি আবাসনে ৫ হাজারের মতো ভোটার রয়েছে। তবে কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর থেকে পানীয় জল ও বিদ্যুৎ পরিষেবা ঠিক মত মিলছেনা বলে অভিযোগ এলাকাবাসীদের। কলোনির বাসিন্দারা এরআগে বিক্ষোভ করলে পানীয় জলের পরিষেবা কিছুটা স্বাভাবিক হলেও বিদ্যুৎ পরিষেবা এখনও ঠিক হয়নি।
এলাকার বাসিন্দারা জানান, বিদ্যুৎ রাত ৯ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত দেওয়া হয়। ছাত্রছাত্রীদের পড়াশোনা করতে অসুবিধা হচ্ছে। প্রশাসনিক মহল ও বিভিন্ন নেতাদের কাছে গিয়ে নালিশ করলেও কোনও ফল হয়নি। তাঁরা নিরুপায় হয়ে এবার ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছেন। তাঁদের বকেয়া টাকা বাকি পড়ে রয়েছে কোম্পানির ঘরে। হাইকোর্টে তা নিয়ে কেস চলছে। যদিও জেলা প্রশাসনের তরফে গোটা বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

- Advertisement -