তুফানগঞ্জে খুলল ইটভাটা

286

রাজীব বসাক, তুফানগঞ্জ: মুখ্যমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় সরকারের ছাড়পত্র মিলতেই তুফানগঞ্জ ১ ব্লকে খুলল ইটভাটা। প্রায় ৪৫ দিন পর ইটভাটা খোলায় খুশি মালিক ও শ্রমিকরা।

লকডাউনের প্রথমদিন থেকেই তুফানগঞ্জ ১ ব্লকের ইটভাটাগুলি বন্ধ হয়ে যায়। কাজ হারিয়ে কার্যত দিশেহারা হয়ে পড়েন তাঁরা। লকডাউনের তৃতীয় স্তরে অনেকক্ষেত্রে ছাড় মিলেছে। গ্রীন জোনগুলিতে ক্রমেই স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন। খুলছে বাস, চালকল ও ইটভাটা।

- Advertisement -

কোচবিহার জেলাও রয়েছে গ্রীন জোনে। তাই জেলাজুড়ে খুলছে ইটভাটা এবং সমস্ত কলকারখানা। বিশ্বের এই কঠিন সময়ে শ্রমিকরা কাজ ফিরে পেয়ে খুশি। তাঁরা মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।

তুফানগঞ্জ ১ ব্লকে মোট ২৮টি ইটভাটা রয়েছে। এই ইটভাটা গুলিতে প্রতিদিন প্রায় দুইহাজার মানুষ কাজ করেন। নির্দেশ মেনে ১৫ শতাংশ শ্রমিক দিয়ে ইটভাটা গুলির কাজ শুরু হল।

ইটভাটার শ্রমিক আজিজুল হক, শের আলি বলেন, ‘লকডাউনে বন্ধ হয়ে যায় ইটভাটার কাজ। কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সমস্যায় পরে যাই আমরা। বিপদের সময় মালিকরা সাময়িকভাবে পাশে এসে দাঁড়ান। শেষে মুখ্যমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশে কম সংখ্যক শ্রমিক নিয়ে শুরু হয় ইটভাটার কাজ। ইটভাটায় কাজ শুরু হওয়ায় আমরা খুশি। এই কঠিন সময়ে অন্তত কাজ করে পরিবারের মুখে অন্ন তুলে দিতে পারব।’

ইটভাটার মালিকরা জানান, সরকারি সমস্ত নিয়ম মেনে আমরা ইটভাটা খুলেছি। ইট ভাটা খুলে যাওয়ায় উপকৃত হচ্ছে ভাটার শ্রমিকরা। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাজ চলছে।

এই বিষয়ে মারুগঞ্জ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ধরনী কার্জি জানান, সামাজিক দূরত্ব রেখেই মারুগঞ্জ এলাকায় ইটভাটাগুলিতে কাজ হচ্ছে। আপাতত ১৫ শতাংশ শ্রমিক ভাটাগুলিতে কাজ করছে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতেই ইটভাটাগুলিতে শ্রমিক সংখ্যা বাড়বে।