গ্রামে রক্তদান শিবির করলেন নির্মল ছেত্রী

নয়াদিল্লি : সিকিমের বুকে ছোট্ট গ্রাম। নাম মেলি। সেই পাহাড়ি গ্রামে কোভিড নামক গ্লোবাল দানবের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে শামিল এক যোদ্ধা। ভারতীয় ফুটবল অবশ্য তাঁকে একডাকে চেনে। তিনি নির্মল ছেত্রী।

সারা ভারত যখন করোনায় কাঁপছে। তখন নিজের গ্রামে লড়াইয়ে ব্যাটন তুলে নিয়েছেন নিজের হাতে। কঠিন লড়াইয়ে একা জেতা সম্ভব নয়। গোটা ভারতকে হাতে হাত ধরে লড়াই করতে হবে। তাহলেই করোনার বিরুদ্ধে জেতা সম্ভব। সেই আত্মপ্রত্যয়কে সঙ্গী করেই কঠিন যুদ্ধে শামিল নির্মল। নিজের গ্রামে আয়োজন করেছেন রক্তদান শিবির। সাড়াও মিলেছে প্রচুর। কলকাতার দুই প্রধানে দাপিয়ে খেলা নির্মলের কথায়, ফুটবলার হিসেবে সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের সঙ্গে পরিচয় হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ভালোবাসাও পেয়েছি প্রচুর। তাই তাদের জন্য কিছু করতে পারলে ভালো লাগে। সঙ্গে আরও বলেন, কোভিড পরিস্থিতিতে স্থানীয় ব্লাড ব্যাংকে রক্তের চাহিদা হঠাৎ বেড়ে গিয়েছিল। সেটা মাথায় রেখেই এই রক্তদান শিবির আয়োজনের পরিকল্পনা।

- Advertisement -

নির্মলের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে তাঁর গ্রামের ফুটবল ক্লাব এফসি মেলি। ৩০ বছরের ভারতীয় সাইডব্যাক বলেন, সামনে অনেক কঠিন চ্যালেঞ্জ ছিল। স্বাস্থ্যবিধি মেনে রক্তদান শিবির আয়োজন করা সহজ ছিল না। এটা সম্ভব হয়েছে ক্লাবের (এফসি মেলি) নিরলস প্রচেষ্টায়। সিকিমের ব্লাড আর্মির মতো সংগঠনও নির্মলদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছিল। দক্ষিণ সিকিমের নামচি জেলা হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংকে ৫৮ ইউনিট রক্ত তুলে দেওয়া সম্ভব হয়েছে, আপ্লুত গলায় জানান ভারতীয় ডিফেন্ডার।

গতবছর নিজের গ্রামে স্যানিটাইজেশনের কাজ শুরু করেছিলেন। কোভিডের বিরুদ্ধে লড়াইটা সেখানেই থেমে থাকেননি। উত্তরোত্তর বেড়েছে। আর ততই বেড়েছে নির্মলের সাফল্যের জেদ। কোভিডের বিরুদ্ধে নির্মল অভিয়ানে তাই অকুতোভয় ভারতীয় ফুটবল তারকা।