বোনকে খুন করার অভিযোগ দাদার বিরুদ্ধে

270

রায়গঞ্জ ৪ মার্চঃ নেশায় বাধা দেওয়ায় ক্ষীপ্ত হয়ে বোনকে শ্বাসরোধ করে খুন করার অভিযোগ উঠল দাদার বিরুদ্ধে। বুধবার সকালে মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে রায়গঞ্জ শহরের উকিলপাড়া এলাকায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে মৃত ওই ছাত্রীর নাম দেবলীনা দে(২২)। সে রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাচেলার অফ কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন বিভাগে পাঠরত। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই ছাত্রীকে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দাদা দেবাশীষ দে নেশায় আসক্ত ছিল। বোন দেবলীনা বারংবার মানা করলেও কথা শোনেনি দাদা।। এদিন দুপুরে দেবাশীষ নেশা সেবন করে বাড়িতে ঢোকে। মা ও বোন প্রতিবাদ করায় বোন ও মাকে মারধর করে। এরপর মাকে একটি ঘরে আটকে রেখে বোনকে শ্বাসরোধ করে খুন করে। এরপর সেখান থেকে উধাও হয়ে যায়।
এদিকে প্রতিবেশীরা চিৎকার চেঁচামেচি শুনে তাদের বাড়িতে ছুটে এসে দেখে মেঝের মধ্যেই অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে রয়েছে দেবলীনা। প্রতিবেশী সহ দেবলীনার সহপাঠীরা জানালেন, নেশা করে এসে প্রায়ই বোনের উপর অত্যাচার করত দেবাশীষ। এমনকী তাতে মদত দিত মৃতার বাবা দুলাল দে। অবশ্য মৃতার মা পপি দে এদিন থানায় অভিযোগ না করলেও ছেলের জন্যই মেয়েকে মরতে হয়েছে বলে জানান। যদিও পুলিশ সুপার সুমিত কুমার বলেন, ‘মৃত ওই ছাত্রীর সহপাঠীদের তরফ থেকে একটি অভিযোগ জমা পড়েছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ছাত্রীর বাবা দুলাল দে কে গ্রেপ্তার করা হলেও দেবাশীষ এখলও পলাতক। তার খোঁজ চলছে’।