ভর্তুকি না দিলে গাড়ি চালাবেন না উত্তর দিনাজপুরের বাস মালিকরা

দীপঙ্কর মিত্র, রায়গঞ্জ: ২০ জন যাত্রী নিয়ে বাস রাস্তায় নামালে গাড়ির তেল খরচ পর্যন্ত উঠবে না। তারপর আছে বাসকর্মীদের পারিশ্রমিক ও অন্যান্য খরচ। ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে। এই পরিস্থিতিতে সরকার থেকে ভর্তুকি না দিলে রাস্তায় বাস নামানো সম্ভব না। এমনটাই দাবি উত্তর দিনাজপুর বাস ও মিনিবাস ওনার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের।

সোমবার থেকে রাজ্যের গ্রিন জোনগুলিতে বেসরকারি বাস চালানোর নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। তবে নির্দিষ্ট জেলার মধ্যে বাস চলাচল সীমাবদ্ধ রাখতে হবে। এমন নির্দেশিকা পাওয়ার পর জেলার ১১৭টি বাস ও মিনিবাস মালিক বিভ্রান্তির মধ্যে পড়েছেন। কারণ একদিকে সরকারি নির্দেশিকা, অন্যদিকে রয়েছে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়ার আশঙ্কা। আছে সংক্রামণের আশঙ্কাও। পাশাপাশি রাস্তায় একসঙ্গে বেশি সংখ্যক যাত্রী বাসে উঠে বসলে পুলিশি হয়রানির শিকার হতে হবে বাসকর্মীদের। এমন সব চিন্তাভাবনা করে জেলার বাস মালিকেরা এখনই বাস চালাতে চাইছেন না।

- Advertisement -

তবে রাজ্য সরকার যদি প্রতিটি বাসে সরকার নির্ধারিত ১৯১০ টাকা বরাদ্দ করে এবং শ্রম দপ্তর বাস কর্মীদের দায়িত্ব নেয় তাহলে বাস চালাতে কোনো সমস্যা নেই বলে জানিয়েছেন উত্তর দিনাজপুর বাস ও মিনিবাস ওনার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক প্লাবন প্রামাণিক। তিনি বলেন, প্রায় ৪০ দিন লকডাউন চলছে। ক্ষতির মুখে বাস মালিকদের পাশাপাশি বাসকর্মীরা। রায়গঞ্জ থেকে ইটাহার বাস চালালে আপ-ডাউন তেল খরচ পড়ে ৮০০ টাকা। ২০ জন যাত্রীর ভাড়া বাবদ উঠবে ৮০০ টাকা। এরপর আছে কর্মীদের বেতন, চেন, ইন্সুরেন্স ও অন্যান্য খরচ। রাজ্য সরকার ভর্তুকি না দিলে কোনো মতেই গাড়ি চালানো সম্ভব নয়। সেইসঙ্গে শ্রমিকদের দায়িত্ব শ্রম দপ্তরের নিতে হবে। কারণ শ্রমিকদের কোনো ঘটনা ঘটলে তার দায় কে নেবে। আমরা প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনার সময় এই বিষয়গুলি তুলে ধরব।

আইএনটিটিইউসির জেলা সভাপতি অরিন্দম সরকার বলেন, দুই পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে। সিটুর জেলা সভাপতি পরিতোষ দেবনাথ বলেন, শ্রমিকদের সুরক্ষার কথা সরকারকে কথা ভাবতে হবে। এ বিষয়ে মালিকপক্ষ, শ্রমিক সংগঠন ও জেলা প্রশাসনের ত্রিপাক্ষিক বৈঠকের পর গাড়ি চালালে ভালো হয়। আইএনটিইউসির জেলা নেতা প্রণব বসাক বলেন, এখনও কোনও করোনা আক্রান্ত রোগীর খোঁজ না মেলায় গ্রিন জোনের তালিকায় রয়েছে এই জেলা। আগামী সোমবার থেকে গ্রিন জোন এলাকায় বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।তবে এক্ষেত্রে শ্রমিক ও মালিক উভয়ের স্বার্থ দেখতে হবে।

উত্তর দিনাজপুর আঞ্চলিক পরিবহন দপ্তরের রাজ্য সরকারের প্রতিনিধি তিলক চৌধুরী বলেন, জেলায় বাস চালানোর ব্যাপারে একটি নির্দেশিকা এসেছে। তবে এখনও পর্যন্ত বিবিধ বিষয়ে কোনও স্পষ্ট নির্দেশকা না আসায় আমরা বাস মালিক ও শ্রমিক সংগঠনগুলিকে বসতে পারছি না। বাস চালানোর ব্যাপারে নির্দিষ্ট গাইডলাইন আসলেই আমরা ওদের নিয়ে বসব।