নকল সোনা দিয়ে কোটি টাকা ব্যাংক ঋণ নেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তার ব্যবসায়ী

133
প্রতীকী

বর্ধমান: নকল সোনা দিয়ে কোটি টাকা ব্যাংক ঋণ নেওয়ার অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে এক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করল বর্ধমান থানার পুলিশ। ধৃতের নাম লক্ষ্মণ অধিকারী। তাঁর বাড়ি হুগলির মগরা থানার অধিকারীপাড়ায়। অন্যদিকে জেলা জজ পার্থসারথি সেন এই মামলায় বাকি তিন অভিযুক্ত মৌমিতা অধিকারী, মিঠু পাইন ও সমিত গঙ্গোপাধ্যায়ের আগাম জামিন মঞ্জুর করেন।

জানা গিয়েছে, ব্যবসার জন্য ওই চারজন কয়েক দফায় কোটি টাকার কাছাকাছি ঋণ নেয়। ঋণ নেওয়ার জন্য তারা ব্যাংকে সোনা বন্ধক রাখে। ঋণ মঞ্জুরের আগে ব্যাংক নিজস্ব স্বর্ণকার দিয়ে বন্ধক রাখা সোনা পরীক্ষা করায়। স্বর্ণকারের শংসাপত্র মেলার পর ঋণ মঞ্জুর হয়। এরপর ২০২০ সালে ব্যাংকের অডিটর বিভিন্ন ঋণের অ্যাকাউন্টের বন্ধক রাখা জিনিসপত্র পরীক্ষা করলে তাতে ওই ৪ জন নকল সোনা দিয়ে ঋণ নিয়েছে বলে জানানো হয়। এরপরই ব্যাংকের তরফে বর্ধমান থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। অন্যদিকে, অভিযুক্ত লক্ষ্মণ অধিকারী সিজেএম আদালতে পৃথক একটি মামলা দায়ের করেন। তার অভিযোগ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাঁর বন্ধক রাখা সোনা হাতিয়ে নিয়েছে। এদিকে ব্যাংকও তার দায়িত্ব ঠিকমতো পালন করেনি বলে জেলা জজ তাঁর নির্দেশে উল্লেখ করেছেন। সুনির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করে শুক্রবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হলে তদন্তের প্রয়োজনে তাকে ৭ দিন নিজেদের হেপাজতে নিতে চেয়ে আদালতে আবেদন জানান তদন্তকারী অফিসার দীপ্তেশ চট্টোপাধ্যায়। সিজেএম সুজিত কুমার বন্দ্যোপাধ্যায় ধৃতকে ৫ দিনের পুলিশি হেপাজতের নির্দেশ দেন। ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ।

- Advertisement -