চিতাবাঘের আতঙ্কে খাঁচা পাতল বন দপ্তর

107

নিশিগঞ্জ: ফের চিতা বাঘের আতঙ্ক ছড়িয়েছে কোচবিহার-১ ব্লকের বালাগ্রাম এলাকায়। রবিবার রাতে চান্দামারি গ্রাম পঞ্চায়েতের বালাগ্রামে কার্তিক বর্মন নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে একটি গোরুর মাথায় চিতা বাঘটি থাবা মেরে পালিয়ে যায় বলে গ্রামবাসীদের দাবি। বালাগ্রামের কালি মন্দিরের পূর্ব দিকে শালটিয়া নদী সংলগ্ন ভুট্টা খেত ও জঙ্গলের মধ্যে চিতা বাঘটি লুকিয়ে রয়েছে গ্রামবাসীরা মনে করছেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ৪ মার্চ পার্শ্ববর্তী কাটামারি গ্রামের শালটিয়া নদী সংলগ্ন এলাকা থেকে একটি চিতা বাঘ উদ্ধার করে বনদপ্তর। সেদিন পুলিশ সহ ৩ জন গ্রামবাসী জখমও হন সেই চিতা বাঘটির হাতে। সোমবার ফের দিনভর এলাকায় বাঘের আতঙ্কের পর সন্ধ্যা হতেই এলাকা শুনশান হয়ে যায়।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, রবিবার রাতে গ্রামে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। সেসময় গ্রামে ফের চিতা বাঘের আতঙ্ক ছড়িয়ে পরে। খবর পেয়ে সোমবার বালাগ্রামে আসে বনদপ্তরের কর্মীরা। গ্রামের বেশ কয়েক জায়গা থেকে অজানা জন্তুর পায়ের ছাপ সংগ্রহ করেন বনদপ্তরের কর্মীরা। বিকালে গ্রামের ভুট্টা খেতের ভিতর ছাগলের টোপ দিয়ে বাঘটি ধরার জন্য খাঁচা পাতে বনদপ্তরের কর্মীরা।

- Advertisement -

কোচবিহারের ডিএফও সঞ্জিত কুমার সাহা জানান, চিতাবাঘ নিয়ে অযথা আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। পায়ের ছাপের নমুনা পরীক্ষা করে দেখা গিয়েছে ওগুলো চিতা বাঘের পায়ের ছাপ নয়। তবু গ্রামবাসীদের আতঙ্ক দূর করতে খাঁচা পাতা হয়েছে।