সু কি-র বিরুদ্ধে মামলা দায়ের, শাস্তি হতে পারে ২ বছর

149

ইয়াঙ্গন: ফের বন্দি মায়ানমারের নোবেলজয়ী নেত্রী আং সান সু কি। নেত্রীর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হলে ওই দেশের আইনে তাঁর দুই বছরের কারাদণ্ড হতে পারে বলে জানা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে এই তথ্য জানা যায়।

গত ১ ফেব্রুয়ারি, সোমবার সেনা অভ্যুত্থান ঘটে মায়ানমারে। আটক করা হয় সু কি-সহ একাধিক নেতানেত্রীকে। এদিন বেআইনিভাবে আমদানি করা একাধিক ওয়াকি-টকি বাড়িতে রাখার অপরাধে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে পুলিশ। ফলে আইনের প্যাঁচে সু কি-র ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বন্দিদশা আপাতত পাকা। অন্যদিকে, সু কির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রমাণিত হলে সু কির সর্বোচ্চ দুই বছরের কারাদণ্ড হতে পারে বলে জানিয়েছে তাঁর দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির (এনএলডি)।

- Advertisement -

সোমবারই নতুন নির্বাচিত সরকারের প্রথম পার্লামেন্ট অধিবেশন বসার কথা ছিল। আচমকাই অভ্যুত্থান ঘটিয়ে মায়ানমারের সেনাবাহিনী এক বছরের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করে। সু কি এবং তাঁর দল ‘ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসি’ (এনএলডি)-র বিরুদ্ধে ভোটে জালিয়াতির অভিযোগ এনে, ‘সংবিধান রক্ষার’ আটক করা হয় নেত্রী সহ অনেককে। পাশাপাশি সেনা অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে অহিংস প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানিয়েছে সু কি-র দল। মঙ্গলবার রাতে তাদের সমর্থনে ইয়াঙ্গনের পথে নামেন হাজার হাজার মানুষ। গাড়ির হর্ন বাজিয়ে, থালা-বাসন বাজিয়ে প্রতিবাদ জানান তাঁরা। সেনার সমর্থনেও মিছিল হয়েছে ওই রাতে।