কয়লাকাণ্ডে এক রেল কর্তাকে জেরা সিবিআইয়ের

96

কলকাতা: একদিন আগেই কয়লা পাচার কাণ্ডের তদন্তে নিযুক্ত সিবিআইয়ের গোয়েন্দারা পূর্ব রেলের আসানসোল শাখার তিনজন অফিসারকে নিজাম প্যালেসে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন। আর মঙ্গলবার সিবিআই ওই ব্যাপারে পূর্ব রেলের মুখ্য কমার্শিয়াল ম্যানেজার মনোজ কুমারকেও তাঁদের দপ্তরে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। মনোজ কুমারের কাছ থেকে তাঁদের জানার বিষয় ছিল, আসানসোল বিভাগের যেসব মালবাহী গাড়িগুলিতে কয়লা পাঠানোর জন্য ব্যবহার করা হতো সেগুলি কিভাবে বরাদ্দ করা হত এবং সেইসব গাড়িগুলির জন্য রেল কতই বা টাকা পেত ইত্যাদি। অপরদিকে, এদিন সিবিআইএর তরফে সারদাকাণ্ডে আরও একবার ডেকে পাঠানো হয়েছে কলকাতার ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের কর্তা দেবব্রত সরকার ও সারদার বারুইপুর এলাকার বড় এজেন্ট অরিন্দম দাসকেও।

প্রসঙ্গত, ওই সারদাকাণ্ডে সোমবার ডিরেক্টরেট অফ এনফোর্সমেন্ট (ইডি) গোয়েন্দারা সিজিও কমপ্লেক্সে তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষকে আবার ঢেকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। ইডি সূত্রে খবর, জিজ্ঞাসাবাদের সময় কুণাল ঘোষ তাদের জানিয়েছেন, তিনি সারদার থেকে মাইনে হিসেবে যে টাকা পেয়েছিলেন তার থেকে আয়কর হিসাবে যে টাকা তিনি দিয়েছেন ও ৫০ লক্ষ টাকা তিনি সুদীপ্ত সেনকে ধার হিসেবে দিয়েছেন বলে দাবি করেন। সেই টাকা বাদে পুরো টাকাই তিনি ফেরত দিয়ে দিতে চেয়েছেন। ইডি অফিসারদের বক্তব্য, কুণাল ঘোষ সারদা-কর্তা সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে প্রতিমাসে যে বিপুল অঙ্কের টাকা বেতন হিসেবে পেতেন তার বাইরেও অনেক বেশি টাকা তিনি সারদা থেকে দালালি হিসাবে পেয়েছেন। আর সেসব তথ্য পাওয়ার জন্যই তাঁকে আবার ১৪ মার্চ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকেছেন তদন্তকারীরা।

- Advertisement -