অ্যাসেন্সিওর জাদুতে তিন পয়েন্ট রিয়ালের

মাদ্রিদ: একটা সময় তাঁর বাঁ পায়ের সঙ্গে লিওনেল মেসির তুলনা করতেন ক্লাবের সমর্থকরা। এমনকি জিনেদিন জিদানও তাঁর বাঁ পায়ের ভক্তদের মধ্যে একজন। কিন্তু চোটের জন্য সেই ঔজ্জ্বল্য কিছুটা ম্লান হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু শনিবার রাতে ঘরের মাঠে সেল্টা ভিগোর বিরুদ্ধে ঝলসে উঠল মার্কো অ্যাসেন্সিওর পা। ভালো ফর্মে থাকা সেল্টাকে ২-০ গোলে হারিয়ে লা লিগায় জয়ের সরণিতে ফিরল রিয়াল মাদ্রিদও।

ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জিদান বলছিলেন, আমাদের ভাগ্যটা কিছুটা খারাপ। আমরা এখন যেসব দলের বিরুদ্ধে খেলছি, তারা সকলেই ভালো ফর্মে রয়েছে। ফলে আমাদের কাজটা কিছুটা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। কথাটা একেবারে ভুল বলেননি এই ফরাসি মহাতারকা। লিগে শেষ ৬ ম্যাচের পাঁচটিই জিতেছে সেল্টা, ড্র করেছে অন্যটিতে। এমন দলের বিরুদ্ধে ডিফেন্সের স্তম্ভ সার্জিও র‌্যামোসকে পাননি জিদান। গত দু মরশুমে দেখা গিয়েছে, র‌্যামোস না থাকলে ম্যাচ জেতার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়েছে রিয়াল। তবে এদিন দল নামানোর ক্ষেত্রে তিনি কিছুটা জুয়াই খেলেছিলেন। তাই এডেন হ্যাজার্ড, ইস্কো, ভিনিসিয়াস জুনিয়াররা থাকতেও করিম বেঞ্জিমার সঙ্গে দুই উইংয়ে খেলালেন অ্যাসেন্সিও এবং লুকাস ভাস্কুয়েজকে। জিদানের ভরসার দাম দিয়ে গোল করলেন ও করালেন দুজনেই। শুরুর মিনিট পাঁচেকের মধ্যেই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল সেল্টা। ইগো আসপাসের শট গোলরক্ষক থিবো কুর্তোয়া না ধরতে পারলেও ডিফেন্ডার নাচো ফার্নান্ডেজ গোললাইনে আটকে দেন। এর থেকেই প্রতি আক্রমণে গিয়ে গোল করে রিয়াল। অ্যাসেন্সিওর মাপা ক্রসে মাথা ছোঁয়াতে ভুল করেননি লুকাস। ৫৩ মিনিটে এই লুকাসের পাস থেকেই গোল করেন অ্যাসেন্সিও। তবে ড্যানি কার্ভাহালের শট সামান্যের জন্য বাইরে না গেলে আগেই লিড দ্বিগুণ করে ফেলত রিয়াল।

- Advertisement -

এদিন মাঝমাঠের দখল নিতে টনি ক্রুজ, ক্যাসেমিরো ও লুকা মডরিচের পুরোনো ত্রিভুজকে নামিয়েছিলেন জিদান। ফলে নিজেদের স্বাভাবিক প্রেসিং ফুটবল খেলতে পারেনি সেল্টা। তার ওপর ৫১ মিনিটে আসপাস এবং ৬৪ মিনিটে নোলিতো চোট পেয়ে উঠে যাওয়ায় শেষদিকে তাদের আক্রমণে তেমন ঝাঁঝ ছিল না। ফলে সহজেই তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে রিয়াল। এদিন ম্যাচ জিতে খুশি জিদান বলেন, আমরা শুরু থেকেই ভালো খেলেছি। বিশেষত বিপক্ষকে একেবারেই খেলার জায়গা দিইনি। এই তিন পয়েন্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অন্যদিকে, বহুদিন পর নজরকাড়া ফুটবল খেলে খুশি অ্যাসেন্সিও। হাঁটুর চোটের জন্য গত মরশুমের শুরু থেকেই ভুগছেন। কিন্তু তাতেও সমালোচকদের মুখ বন্ধ ছিল না। এদিন অবশ্য তাঁর পারফরমেন্স সকলের মুখ বন্ধ করার জন্য যথেষ্ট। তিনি বলেছেন, চোট থেকে ফিরে আসার প্রক্রিয়াটা কঠিন। কিন্তু অনেকেই বিষয়টি বোঝেন না। তবে আমি সঠিক পথেই আছি। পাশাপাশি নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করি। এদিন জিতে ১৭ ম্যাচে ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শীর্ষে উঠে এসেছে রিয়াল। অবশ্য পরের ম্যাচে ডেপোর্টিভো আলাভেসের কাছে না হারলেই ফের শীর্ষে ফেরত আসবে দুনম্বরে থাকা অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ১৪ ম্যাচ খেলে তারা ৩৫ পয়েন্ট পেয়েছে।