ভোট বড় দায়, স্বাস্থ্যবিধিতে বদল আনল কেন্দ্র

519

নয়াদিল্লি: ভোট না করোনা, সংবেদনশীল কোনটি? বিহারের বিধানসভা নির্বাচন এবং ৬৪টি আসনে উপনির্বাচনের জন্য বৃহস্পতিবার বিধিনিষেধে পরিবর্তন আনল কেন্দ্রীয় সরকার। এর আগে ৩০ সেপ্টেম্বর এক নির্দেশিকায় বলা হয়েছিল, ১৫ অক্টোবরের পর সমস্ত সামাজিক, ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক, বিনোদন, শিক্ষা, ক্রীড়া ও রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে সর্বাধিক ১০০ জন অংশ নিতে পারবেন। কিন্তু এদিন ঘোষণা করা হল, বদ্ধ জায়গায় বৈঠক বা জনসভা করলে আসন সংখ্যার ৫০ শতাংশ ভর্তি করা যাবে। সর্বাধিক ২০০ জন ওই সভায় অংশ নিতে পারবেন। তবে এসব  কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে।

এর আগে কেন্দ্র জানিয়েছিল, সভা, আলোচনাচক্র বা নির্বাচনি র‌্যালি করা যাবে ১৫ অক্টোবরের পর। কিন্তু এদিন কেন্দ্র নয়া সংশোধনীতে জানিয়েছে, নির্বাচনি র‌্যালি এখনই করা যেতে পারে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, স্যানিটাইজার ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক। রাজনৈতিক র‌্যালিতে অংশগ্রহণের আগে থার্মাল স্ক্যানিং করার নির্দেশও দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

- Advertisement -

অক্টোবর মাসের শেষ সপ্তাহে শুরু হতে চলেছে বিহার বিধানসভার নির্বাচন। তেলেঙ্গানা, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, ওডিশা, হরিয়ানা, ঝাড়খণ্ড, মণিপুর ও কর্ণাটক সহ ১২টি রাজ্যে ৬৪ আসনে রয়েছে উপনির্বাচন। রাজনৈতিক দলগুলি এই নয়া স্বাস্থ্যবিধি নিয়ে উচ্চবাচ্য না করলেও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তে ক্ষোভপ্রকাশ করেছেন। তাঁদের মতে, স্বাস্থ্যবিধিতে এই সংশোধন মানুষকে বিপদের মুখে ঠেলে দিল। এই সিদ্ধান্তে ভোটের পর সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলিতে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।