রাজ্যের ওবিসি শংসাপত্রে স্বীকৃতি দেবে না কেন্দ্র

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : রাজ্যের দেওয়া ওবিসি শংসাপত্রে কেন্দ্রীয় সরকারি চাকরিতে সংরক্ষণ মিলবে না বলে জানিয়ে দিল কলকাতা উচ্চ আদালত। বিচারপতি শেখর ববি সরাফ এই রায় দেন। তিনি জানান, কেন্দ্রীয় সরকারি চাকরির জন্য সংরক্ষণের সুবিধা পেতে কেন্দ্রীয় অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ দপ্তরের শংসাপত্র প্রয়োজন।

রাজ্যের ওবিসি শংসাপত্র থাকা সত্ত্বেও সিআরপিএফের চাকরিতে সংরক্ষণের সুবিধা না মেলায় আদালতে যান বীরভূমের সিউড়ির বাসিন্দা পিন্টু আলি খান। তাঁর দাবি, ২০১৮ সালে সিআরপিএফে চাকরির বিজ্ঞপ্তিতে সংরক্ষণের সুবিধা চেয়ে তিনি আবেদন জানালে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তা গ্রাহ্য করেননি। সিআরপিএফ কর্তৃপক্ষ রাজ্যের জারি করা ওবিসি শংসাপত্র (২০১২ সালের) বৈধ নয় বলে জানিয়ে দেন। তাঁকে কেন্দ্রীয় অনগ্রসর শ্রেণি কল্যাণ মন্ত্রকের শংসাপত্র আনতে বলা হয়। কিন্তু সিউড়ির মহকুমাশাসক তা দিতে অস্বীকার করেন বলে তাঁর অভিযোগ। এর ফলে তিনি চাকরির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ নিয়ে কলকাতা উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হন। তাঁর আইনজীবী দেবব্রত দাশগুপ্ত এই শংসাপত্র দেওয়ার জন্য আদালতে সওয়াল করেন।

- Advertisement -

রাজ্যের আইনজীবী শান্তনু মিত্র জানিয়ে দেন, কেন্দ্রের নির্ধারিত প্রোফর্মা অনুযায়ী শংসাপত্র দেওয়ার এক্তিয়ার মহকুমা শাসকের নেই। সিআরপিএফের আইনজীবী বি ঝা জানান, কেন্দ্রের শংসাপত্র ছাড়া চাকরিতে সংরক্ষণ সুবিধা দেওয়া যায় না। ফলে পিন্টু আলি খানের আবেদন খারিজ হয়ে যায়। বিচারপতি শেখর ববি সরাফ সব পক্ষের আইনজীবীদের সওয়াল শুনে চূড়ান্ত রায় ঘোষণা করেন। ২০১৮ সালে সংশোধিত আইনে রাজ্যে যে ৯৭টি শ্রেণিকে ওবিসি তালিকায় রাখা হয়েছে, তার সবকটি কেন্দ্রীয় ফর্ম্যাটের অন্তর্ভুক্ত নয়। পিন্টু আলি খানের আইনজীবী বিষয়টি নিয়ে উচ্চতর আদালতে যাবেন বলে জানান।