অশৌচের কারণে বন্ধ ডাকুয়াবাড়ীর শতাব্দী প্রাচীন দুর্গাপুজো

286
হেলাপাকড়ির ডাকুয়াবাড়ীর স্থায়ী দুর্গা মন্দির।

হেলাপাকড়ি: বংশের প্রবীণ সদস্যের প্রয়াণে অশৌচ চলছে হেলাপাকড়ির ডাকুয়া পরিবারে। এ কারণেই বন্ধ এবছর থাকছে ডাকুয়াবাড়ীর শতাব্দী প্রাচীন দুর্গাপুজো ও ভাঙানি পুজো। এরফলে মন খারাপ ডাকুয়া পরিবার সহ প্রতিবেশীদের।

ডাকুয়াবাড়ীর একই মন্দিরে মা দুর্গা ও ভাণ্ডানিদেবীর পুজো হয়। ডাকুয়াবাড়ীর এই পুজো এলাকার ঐতিহ্য বহন করে। পুজোকে ঘিরে গ্রামবাসীদের মধ্যে উন্মাদনা থাকে। এবছর সেই পুজো না থাকায় মন ভার সকলের।

- Advertisement -

পুজোর দায়িত্বে থাকা ডাকুয়া পরিবারের প্রবীণ সদস্য দেবব্রত রায়ডাকুয়া বলেন, করোনা আবহের মধ্যেও যাবতীয় সতর্কবিধি মেনে পুজোর প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু হঠাৎ করে জ্যাঠতুতো দাদা হিরু রায়ডাকুয়া মারা যান। এ জন্য অশৌচ চলছে। তাই এবছর পুজো করা হচ্ছে না।

ডাকুয়াবাড়ির পুজো না থাকায় মন খারাপ প্রতিবেশীদেরও। প্রতিবেশী নিরুপমা রায় বলেন, পাড়ার সবাই ডাকুয়াবাড়ির পুজোতে ভীষণ আনন্দ করি। নতুন জামা কাপড় পরে পুজোর ক’দিন দারুন মজা হয়। দুর্গাপুজো শেষ হতেই পরের দিন একই মন্দিরে মা ভাঙানিরও পুজো হয়। সব মিলিয়ে ওই ক’টা দিন হৈ হুল্লোড় করে কেটে যায়। তাই ডাকুয়াবাড়ির পুজো না থাকায় মন খারাপ সকলের।