বাংলাদেশের টেকনাফ থেকে উদ্ধার চাঁচলের নাবালিকা

232

চাঁচল: দীর্ঘ নয়মাস পর এক নাবালিকাকে বাংলাদেশ থেকে উদ্ধার করল চাঁচল থানার পুলিশ। বুধবার সন্ধ্যায় ওই নাবালিকাকে উদ্ধার করে চাঁচল থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। ১৬ বছর বয়সী ওই নাবালিকার বাড়ি চাঁচল-১ ব্লকের মকদমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের হাজাতপুর এলাকায়।

চাঁচল থানার পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত জানুয়ারি মাসে হাজাতপুর এলাকার এক নাবালিকা হারিয়ে গিয়েছে বলে চাঁচল থানায় মিসিং ডায়েরি করেন তাঁর পরিবার। মিসিং ডায়েরির পর পুলিশ তদন্ত নেমে জানতে পারেন ওই নাবালিকাকে ফুঁসলিয়ে নিয়ে পালায় এলাকারই এক যুবক। পরে জানা যায় ওই যুবকের বাড়ি বাংলাদেশ। সে হাজাতপুর এলাকায় কয়েকবছর ধরে অবৈধভাবে বসবাস করছিল। যদিও ওই যুবক নিজেকে ভারতের নাগরিক বলে পরিচয় দেয়। ওই যুবক হাজাতপুর এলাকায় বিয়েও করেন। তাঁর স্ত্রী ও সন্তানদের ছেড়ে ওই নাবালিকাকে নিয়ে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশ চলে যান।

- Advertisement -

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই নাবালিকাকে উদ্ধারের জন্য রাজ্যের সিআইডি দপ্তরের আধিকারিকরা তদন্তে নামেন। সিআইডি জানতে পারেন ওই নাবালিকাকে নিয়ে বাংলাদেশি যুবক টেকনাফ থানা এলাকায় রয়েছেন। রাজ্যের পুলিশ যোগাযোগ করেন বাংলাদেশের টেকনাফ থানায়। তারপর টেকনাফ থানার পুলিশের তৎপরতায় বাংলাদেশি ওই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই নাবালিকাকে উদ্ধার করে হোমে রাখা হয়।

এরপর মালদা জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে এই কেসের আইও চাঁচল থানার এএসআই ওবায়দুর রহমান, এসআই শুভঙ্কর দেবনাথ ও লেডি কনস্টেবল বকুল রায়ের একটি দল পৌঁছান দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার বেনাকোল চেকপোস্টে বুধবার। সেদিনই বাংলাদেশের টেকনাফ থানার পুলিশ ওই নাবালিকাকে চাঁচল থানা পুলিশের হাতে হস্তান্তর করেন। ওই নাবালিকাকে নিয়ে বুধবার সন্ধ্যা নাগাদ পৌঁছান চাঁচল থানায়।

দীর্ঘ নয়মাস পর ঘরের মেয়ে উদ্ধার হওয়ায় ওই নাবালিকার পরিবারের তরফে চাঁচল থানার পুলিশকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন। চাঁচল থানার আইসি সুকুমার ঘোষ বলেন, ‘আপাতত ওই নাবালিকাকে এদিন চাঁচল মহকুমা আদালতে পেশ করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে ওই নাবালিকাকে।’