কলকাতা, ২৫ মেঃ লোকসভা নির্বাচনে খারাপ ফলের জের। দলের সাংগঠনিক স্তরে একাধিক রদবদল করলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার কালীঘাটে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে বসেন তিনি। এদিন একাধিক জেলার সভাপতি বদল করেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

জঙ্গলমহলে তৃণমূলের ভরাডুবির পর জঙ্গলমহলের দায়িত্ব দেওয়া হল শুভেন্দু অধিকারীকে। পাশাপাশি, সরকারি সংগঠনের দায়িত্বে আনা হল তাঁকে। বাঁকুড়ার সভাপতি হলেন শুভাশিস বটব্যাল। বীরভূম, বর্ধমান, হাওড়া ও হুগলির পর্যবেক্ষকের দায়িত্বে থাকছেন ফিরহাদ হাকিম। হুগলি জেলা তৃণমূলের সভাপতি করা হল রত্না দে নাগকে। বিষ্ণুপুরের সভাপতির দায়িত্বে থাকবেন শ্যামল সাঁতরা। বর্ধমান পশ্চিমের সভাপতি করা হয়েছে জিতেন তিওয়ারিকে। পাশাপাশি বর্ধমান পূর্বের দায়িত্বে থাকছেন স্বপন দেবনাথ। মুর্শিদাবাদ জেলা সভাপতি আবু তাহের খান ও চেয়ারম্যান হলেন সুব্রত সাহা। ঝাড়গ্রাম জেলা সভাপতি হলেন বীরবাহা সোরেন। দক্ষিণ দিনাজপুরে অর্পিতা ঘোষকে তৃণমূল জেলা সভাপতির দায়িত্ব দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। অমল আচার্যকে উত্তর দিনাজপুর তৃণমূলের জেলা সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে নতুন সভাপতি করা হল কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে। মালদা জেলার সভাপতি মৌসম বেনজির নূর ও চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন। সভাপতি পদের পাশাপাশি মহিলা কমিশনের চেয়ারম্যানও করা হয়েছে মৌসমকে। উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান করা হল অমর সিং রাইকে। আগে ওই পদে ছিলেন গৌতম দেব। উত্তরবঙ্গের পর্যবেক্ষক হলেন অরূপ বিশ্বাস। শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি উন্নয়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান করা হল বিজয় বর্মনকে।