মুখ্যমন্ত্রীর নাম শুনে মঞ্চ ছাড়লেন বিজেপি সাংসদ ও বিধায়ক

286

বীরপাড়া: বিতর্কের মধ্যে দিয়েই ১৬ মাস পর খুলল ডানকানের বীরপাড়া চা বাগান। এতে একদিকে যেমন মুখ্যমন্ত্রী ও শ্রমমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতেই অনুষ্ঠান ছেড়ে চলে যান মাদারিহাটের বিজেপি বিধায়ক ও আলিপুরদুয়ারের সাংসদ। অন্যদিকে, শর্ত না মেনে জোর করে বাগান খোলা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে সরব হয় শ্রমিকদের একাংশ।

শ্রমিক অসন্তোষের মধ্য দিয়েই ১৬ মাস পর মঙ্গলবার মেরিকো টি কোম্পানির হাত ধরে খুলল আলিপুরদুয়ার জেলায় অবস্থিত ডানকানের বীরপাড়া চা বাগানটি। তবে কারখানা চত্বরে বাগান খোলার অনুষ্ঠানের পাশাপাশি গেটের বাইরে সকাল থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত টানা বিক্ষোভ দেখান শ্রমিকদের একাংশ। অভিযোগ, তাঁদের শর্ত না মেনে জোর করে খোলা হয়েছে বাগানটি। এদিকে, মাইকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় ও শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটককে ধন্যবাদ জানিয়ে করা ঘোষণা শোনা মাত্রই অনুষ্ঠান ছেড়ে চলে যান মাদারিহাটের বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গা ও আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বারলা। সাংসদ এনিয়ে মন্তব্য না করলেও অবশ্য তাঁদের কটাক্ষ করতে ছাড়েননি আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের মেন্টর তথা চা বাগান তৃণমূল কংগ্রেস মজদুর ইউনিয়নের সভাপতি মোহন শর্মা।

- Advertisement -

আগাম শ্রমিক অসন্তোষ আঁচ করে এদিন মোতায়েন করা হয়েছিল বিরাট পুলিশবাহিনী। উপস্থিত ছিলেন র‍্যাফের জওয়ানরাও। প্রসঙ্গত, ১৬ মাস পর বাগানটি খোলার মুখে শ্রমিক কর্মচারীদের একাংশের দাবি, ১০ বছরের বকেয়া পিএফ জমা, একযোগে বকেয়া দু’মাসের বেতন ও পুজোর বোনাস মিটিয়ে তবেই বাগান খুলতে হবে। মেরিকো টি কোম্পানি জানিয়েছে, বকেয়া বেতন ও বোনাস ২৫ ডিসেম্বরের আগেই মেটানো হবে। মেরিকো টি কোম্পানির ডিরেক্টর সুরজিৎ বকসি জানান, বাগানটিকে সুশৃঙ্খলভাবে চালাতে যা যা করণীয় সবই করা হবে।