ছুটি না পেয়ে টিকাকরণ বন্ধ রাখলেন স্বাস্থ্যকর্মীরা, ক্ষোভ

288

বুনিয়াদপুর: করোনা টিকাকরণ বন্ধ থাকায় উত্তপ্ত হয়ে উঠল দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বংশীহারী রশিদপুর গ্রামীণ হাসপাতাল চত্বর। দীর্ঘদিন ধরে কোনও ছুটি না মেলায় রবিবার টিকাকরণ বন্ধ রাখেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। তাঁদের বিভিন্ন দাবিদাওয়া নিয়ে বিএমওএইচ ও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি বলে অভিযোগ। এমনকি, নির্ধারিত ১০০ টাকার পরিবর্তে ২৫ টাকার টিফিন দেওয়া হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। অবশেষে রবিবার কর্মবিরতিতে শামিল হন ৪০ জন স্বাস্থ্যকর্মী। সকাল ছয়টা থেকে শতাধিক পুরুষ-মহিলা স্লিপ নিয়ে টিকা নেওয়ার জন্য প্রতীক্ষায় ছিলেন। বেলা ১১টায় জানতে পারেন, আজ টিকা দেওয়া হবে না। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর টিকা না পেয়ে বাধ্য হয়ে বেলা ১টায় ৫১২ জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন শতাধিক পুরুষ-মহিলা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে বংশীহারী থানার পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়। পৌঁছোয় বুনিয়াদপুর পুরসভার চেয়ারম্যান অখিলচন্দ্র বর্মন, ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট মনোতোষ মণ্ডল, বংশিহারি ব্লকের সমষ্টি উন্নয়ন আধিকারিক সুদেষ্ণা পাল, পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি সহ অন্যান্যরা। অবরোধ তুলে প্রশাসনের কর্তারা হাসপাতালের বিএমওএইচ পুলকেশ সাহা সহ স্বাস্থ্যকর্মীদের নিয়ে আলোচনায় বসেন। আলোচনা চলাকালীন দু’জন স্বাস্থ্যকর্মী অসুস্থ হয়ে পড়েন। আলোচনায় কোনও সমাধান না হওয়ায় অবশেষে দুপুর আড়াইটা নাগাদ বিএমওএইচ দু’জন অফিস স্টাফকে নিয়ে টিকাকরণের কাজ শুরু করেন।

- Advertisement -

বিএমওএইচ পুলকেশ সাহা বলেন, ‘অতিমারি পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যভবনের নির্দেশে সপ্তাহের সাতদিনই টিকা দেওয়ার নির্দেশ এসেছে। সেই অনুযায়ী কাজের সূচি তৈরি করা হয়েছে। ওঁনাদের সমস্ত দাবি ভিত্তিহীন।’ স্বাস্থ্যকর্মী নাজমা বেগম জানান, সেন্টারের ডিউটি করার পরেও এই টিকাকরণের কাজে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দীর্ঘদিন কাজ করে চলেছেন তাঁরা। নাজমার কথায়, ‘আমরাও তো মানুষ। সপ্তাহে একদিন ছুটি না মেলায় আজ আমরা কর্মবিরতি করেছি। এছাড়াও এই বাড়তি ডিউটির পারিশ্রমিক বিষয়ে আমাদের ধোঁয়াশায় রেখেছেন বিএমওএইচ।’