ছত্রধর মাহাতোকে তৃণমূলের রাজ্য কমিটিতে আনা হল

1272
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক: ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলে বড়সড় সাংগাঠনিক রদবদল করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দোপাধ্যায়। একাধিক জেলা সভাপতিকে সড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। তবে সবচেয়ে বড় চমক রয়েছে রাজ্য কমিটিতে। ছত্রধর মাহাতোকে তৃণমূলের রাজ্য কমিটিতে নিয়ে আসা হয়েছে। মাওবাদী সন্দেহে দীর্ঘকাল জেলবন্দি ছিলেন তিনি। তবে চলতিবছর ছাড়া পান তিনি। বিশেষ পরিকল্পনা নিয়েই তাঁকে রাজ্য কমিটিতে আনা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

একদা মাওবাদী নেতা ও পুলিশি সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটির সম্পাদক ছত্রধর মাহাতো ২০২০-র ফেব্রুয়ারিতে জেল থেকে ছাড়া পান। লালগড় থানার বীরকাঁড় জঙ্গল থেকে ২০০৯ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর সিআইডি ছত্রধরকে গ্রেপ্তার করে। তাঁর বিরুদ্ধে পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম সহ রাজ্যের নানা থানায় লুঠপাট, অগ্নিসংযোগ, নাশকতা, রাষ্ট্রদ্রোহিতা, খুন, অপহরণ, অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের হয়েছিল।

- Advertisement -

কলকাতা হাইকোর্ট সাজা কমানোর আবেদন করেন ছত্রধর। ২০১৯ এর ১৪ অগাস্ট হাইকোর্ট তাঁর সাজার মেয়াদ কমিয়ে ১০ বছর করে। সেই সময় তাঁর জেলবন্দি থাকার মেয়াদ ১০ বছর পেরিয়ে গেলেও ঝাড়খণ্ডে দায়ের হওয়া একটি মামলা জন্য জেলে থাকতে হয় তাঁকে। পরে অবশ্য সেই মামলাতেও জামিন পান তিনি। জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পরই তৃণমূলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে তাঁর। সস্ত্রীক একাধিক দলীয় কর্মসূচিতেও যোগ দেন তিনি।

এদিকে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, সুকুমার হাঁসদা, ঋতব্রত বন্দোপাধ্যায়, ওমপ্রকাশ মিশ্র, চূড়ামণি মাহাতোকেও রাজ্য কমিটিতে আনা হয়েছে। বীরবাহা সোরেনকে সরিয়ে দুলাল মুর্মুকে ঝাড়গ্রামের তৃণমূল জেলা সভাপতি করা হয়েছে। মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতোকে সরিয়ে আরেক মন্ত্রী সন্ধ্যারানি টুডুর স্বামী গুরুপদ টুডুকে পুরুলিয়া জেলা সভাপতি করা হয়েছে। শ্যামল সাঁতরাকে বাঁকুড়া জেলার সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। মহুয়া মৈত্রকে নদিয়ার সভাপতি করা হয়েছে। মন্ত্রী অরূপ রায়কে সরিয়ে লক্ষীরতন শুক্লকে হাওড়া জেলা (শহর) সভাপতি করা হয়েছে।

বিনয়কৃষ্ণ বর্মনকে সরিয়ে পার্থপ্রতিম রায়কে কোচবিহারের জেলা সভাপতি করা হয়েছে। প্রায় এক বছর ধরে তিনি দলের জেলা কার্যনির্বাহী সভাপতির পদে ছিলেন। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বিনয়কৃষ্ণ বর্মনকে দলের জেলা কমিটির চেয়ারম্যান করা হয়েছে। অপরদিকে, দলের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ও বর্ষীয়ান নেতা হিতেন বর্মনকে দলের রাজ্য কমিটিতে রাখা হয়েছে। বিধায়ক উদয়ন গুহ ও অর্ঘ্যরায় প্রধানকে জেলার কো-অর্ডিনেটর করা হয়েছে।

এদিকে দক্ষিণ দিনাজপুরে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি হলেন গঙ্গারামপুরের বিধায়ক গৌতম দাস। বৃহস্পতিবার দলের রাজ্য নেতৃত্ব বিশেষ বৈঠকে অর্পিতা ঘোষকে সরিয়ে তাঁর জায়গায় জেলা সভাপতি করা হয় গৌতম দাসকে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দলের চেয়ারম্যান করা হয়েছে রাজ্যের প্রাক্তন পূর্তমন্ত্রী শঙ্কর চক্রবর্তীকে। এছাড়া সুভাষ চাকী ও ললিতা টিগ্গাকে জেলার কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।