সেতুর উদ্বোধনে সশরীরে থাকছেন না মুখ্যমন্ত্রী, মন খারাপ সুপ্রিয়ার

141

হলদিবাড়ি: তিস্তা নদীর উপর নির্মিয়মান রাজ্যের মধ্যে দীর্ঘতম জয়ী সেতুর উদ্বোধন হওয়ার কথা আগামী মঙ্গলবার। প্রশাসনিক সূত্রে খবর, ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ওই সেতুর উদ্বোধন করবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেতুর উদ্বোধনের জন্য সশরীরে হলদিবাড়িতে উপস্থিত থাকতে পারছেন না তিনি। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই আশাহত হলদিবাড়ির সাধারণ মানুষ থেকে দলীয় কর্মীরা। একইভাবে আশাহত মুক ও বধির যুবতি সুপ্রিয়া সরকার ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা।

হলদিবাড়ি ব্লকের হেমকুমারী গ্রাম পঞ্চায়েতের সরকার পাড়ার নিবাসী জামসেদুল হকের মেয়ে সুপ্রিয়া সরকার। ছোটবেলায় ট্রাইফয়েড, জ্বরের কারণে হারিয়েছেন শ্রবণ ও কথা বলার শক্তি। ৮০ শতাংশ প্রতিবন্ধী শংসাপত্রও রয়েছে তাঁর। প্রথাগত শিক্ষা ছাড়াই অনায়াসে মনীষীদের প্রতিকৃতি আঁকতে পারেন তিনি। মনীষী ছাড়াও প্রকৃতির বিভিন্ন উপাদানের ছবি এঁকে সময় কাটে তাঁর। নিজের আঁকা ছবি ঘরের চার দেওয়ালে আটকে রেখেছেন। এছাড়াও প্রাথমিক স্তরে পাঠ নেওয়ার কৌলিন্যে সামান্য হলেও অক্ষরজ্ঞান রয়েছে তাঁর মধ্যে। বাংলা ভাষায় লিখতে ও পড়তে জানেন। জয়ী সেতুর শিল্যান্যাসের জন্য ২০১৫ সালের ৬ আগস্ট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হলদিবাড়িতে গিয়েছিলেন। হলদিবাড়ির হুজুরের মাজার প্রাঙ্গণে একটি সভার আয়োজন হয়েছিল। সেই সভা সহ পরবর্তীতে সংবাদপত্র ও টেলিভিশনের পর্দায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর ছবি দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন যুবতী। তারপর থেকেই তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর দলীয় প্রতীক জোড়া ফুলের ছবি আঁকতে শুরু করেন।

- Advertisement -

ওই যুবতীর ভাই নিত্যদিন সকালে সংবাদপত্র ফেরি করেন। সেই সুবাদে ‘উত্তরবঙ্গ সংবাদ’-পত্র থেকে তিনি জানতে পারেন তিস্তা নদীর ওপর নির্মিত ‘জয়ী সেতু’ উদ্বোধন করতে হলদিবাড়িতে আসবেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরেই তিনি ঠিক করেছিলেন নিজের হাতে আঁকা মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর দলীয় প্রতীকের ছবি নিজের হাতেই তুলে দেবেন প্রিয় নেত্রীর হাতে। ইতিমধ্যেই সেই ছবি আঁকাও শেষ। এমতবস্থায় তিনি জানতে পারেন, ‘জয়ী সেতু’ উদ্বোধন করতে হলদিবাড়িতে উপস্থিত থাকতে পারছেন না মুখ্যমন্ত্রী। আর এই খবরে আশাহত হয়ে পড়েন তিনি। পরিবার সূত্রে খবর, সুপ্রিয়ার স্বপ্নভঙ্গ হওয়ায় শনিবার সকাল থেকেই খিটখিটে আচরণ করতে শুরু করেছে।

তৃণমূলের হলদিবাড়ি ব্লক কমিটির সভাপতি অমিতাভ বিশ্বাস বলেন, ‘মেখলিগঞ্জ মহকুমাবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়নের মুখে। মুখ্যমন্ত্রী ভার্চুয়ালভাবে সেতুটির উদ্বোধন করবেন। শিল্যান্যাসের মতো আসন্ন নির্বাচনের আগে জনসভার মাধ্যমে সেতুর উদ্বোধন করা হলে দল উপকৃত হত। মহকুমার মানুষের মধ্যে প্রভাব পড়ত। যা নির্বাচনের ক্ষেত্রে কাজে আসত।’