বেসরকারি বাস অধিগ্রহণের হুমকি মুখ্যমন্ত্রীর

158

কলকাতা: আর বোঝাপড়া নয়, এবার বেসরকারি বাস মালিকদের কড়া বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবারের মধ্যে পথে বাস না নামালে সরকার সমস্ত বেসরকারি বাস অধিগ্রহণ করবে। ওইসব বাসের চালকরা রাজি না হলে প্রযোজনে অন্য চালক নিয়োগ করে সেই বাস নির্ধারিত ভাড়ায় চালানোর দায়িত্ব নেবে রাজ্য সরকার। বাসমালিকরাও পাল্টা আইনি পথে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন। বাসভাড়া বাড়ানোর দাবিতে সায় না দিয়ে ক্ষতিপূরণ দিতে চেয়েছিল রাজ্য সরকার। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বাসমালিকদের সংগঠনগুলি সেই প্রস্তাবে সহমত জানালেও পরে বেঁকে বসে। এর ফলে কলকাতায় এখনও বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়নি। বরং মঙ্গলবার পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়। বাস পাওয়ার জন্য দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয় যাত্রীদের। ভোগান্তি চরমে ওঠে।

এরপরই মঙ্গলবার রাজ্য সরকারের কড়া সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘মানুষের অসুবিধা হলে কখনও কখনও কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হয়। আমি বাস মালিকদের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। শুভেন্দু বলেছিল। মুখ্যসচিব বলেছিলেন। বাসমালিকরা কথাও দিয়েছিলেন। কিন্তু এখন তাঁরা অন্যরকম বিবৃতি দিচ্ছেন দেখছি। বিবৃতি নয়, আশা করছি ওঁরা যা কথা দিয়েছিলেন, সেটা রাখবেন। আমি এখনও অনুরোধ করছি। কিন্তু ওঁরা অনুরোধ না রাখলে তার দায় বাসমালিক সংগঠনগুলির ওপরই বর্তাবে।’ মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, ’আমাদের একটা উপায় বের করতে হবে। এভাবে তো দিনের পর দিন চলতে পারে না।’

- Advertisement -

লকডাউন শিথিল হওয়ার পর থেকে বাস দুর্ভোগ চলছে। রাস্তায় বেসরকারি বাসের সংখ্যা ক্রমশ কমছে। সরকারি বাস বেশি চালানো হচ্ছে বলে দাবি করা হলেও পরিস্থিতি সামলানো যাচ্ছে না।

অন্যদিকে, বাসমালিকদের বক্তব্য, ডিজেলের যেভাবে মূল্যবৃদ্ধি হচ্ছে, তাতে রাজ্য সরকারের বাসপিছু মাসিক ১৫ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণে কোনও লাভ হবে না। মাসিক ১৫ হাজার টাকা মানে দিনে ৫০০ টাকা। এছাড়া অন্য খরচও আছে। ফলে ওই ক্ষতিপূরণে লোকসান এড়ানো যাবে না বলে বাস মালিকদের যুক্তি।

ক্ষতিপূরণের বদলে তাই ভাড়া বৃদ্ধির পক্ষেই তাঁরা সওয়াল করছেন এখনও। কিন্তু ভাড়া বাড়ানোয় যে রাজ্য সরকার সায় দেবে না, সেই কথা মঙ্গলবার আবার বুঝিয়ে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘অস্বীকার করছি না যে, ডিজেলের দাম বাড়ছে। কিন্তু যখন দাম কমে, তখন তো ভাড়া কমানো হয় না। আমি আগেও এই কথা বলেছিলাম। কিন্তু সেই কথা কেউ শোনেননি। শোনেননি যখন, তখন এখন ভাড়া বাড়ানোর প্রশ্ন ওঠে না। সরকারের টাকা নেই। তবু আমরা এই পরিস্থিতিতে ২৭ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে রাজি হয়েছিলাম তিনমাসের জন্য। যাতে জনগণের পকেটের টাকা কাটা না যায়।’

বেসরকারি বাস অধিগ্রহণের হুমকি মুখ্যমন্ত্রীর| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India
প্রতীকী ছবি।

এরপর তিনি ঘোষণা করেন, ’বুধবার পর্যন্ত দেখব। এর মধ্যে যদি বেসরকারি বাস মালিকরা বাস না চালান, তাহলে মহামারি আইনে পদক্ষেপ করব। সমস্ত বাস সরকার নিয়ে নেবে। ড্রাইভার দিয়ে সরকার চালাবে। আমি আশা করব, বাস মালিকদের শুভবুদ্ধির উদয় হবে। এখন ইগোর লড়াই নয়। অহংকারের সময় নয়। ব্যবসা করার সময় নয়।’ তবে প্রথমেই কড়া পদক্ষেপের পক্ষপাতী নন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ’আামি অনুরোধ করব, আপনারা বাস চালান। আমাকে যেন আইন প্রয়োগ করতে না হয়।’

তবে সরকারের কড়া মনোভাব বুঝলেও এখনই সুর নরম করছেন না বাস মালিকরা। তাঁদের আক্ষেপ, বাস্তব পরিস্থিতি না বুঝে সরকার বেসরকারি বাস মালিকদের ওপর চাপ সৃষ্টির চেষ্টা করছে। এইরকম পরিস্থিতি চললে তাঁরাও আইনি পথে যাবেন বলে জানিয়েছে বাসমালিক সংগঠনগুলি।