রাজ্যে চালু ‘শিশু সুরক্ষা সাথী’ অ্যাপ

122

আসানসোল: রাজ্যের মধ্যে প্রথম পশ্চিম বর্ধমান জেলায় ‘শিশু সুরক্ষা সাথী’ নামে এক নতুন অ্যাপ চালু হল। শুক্রবার আসানসোল দূর্গাপুর উন্নয়ন পর্ষদ বা আড্ডার সভাহলে এই অ্যাপের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা শাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাজি। নতুন এই শিশু সুরক্ষা সাথী অ্যাপসের মাধ্যমে প্রত্যেক গ্রাম সংসদ থেকে শুরু করে ব্লক ও ওয়ার্ড থেকে নিয়মিতভাবে রিপোর্ট পাঠাতে হবে। সেই রিপোর্ট জেলার জেলাশাসক, সংশ্লিষ্ট বিভাগের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত জেলা শাসক এবং জেলা সমাজ কল্যাণ আধিকারিক পর্যন্ত দেখতে পাবেন। এক্ষেত্রে ব্লকের বিডিও থেকে জেলাশাসক পর্যন্ত প্রত্যেকের আলাদা আলাদা লগ-ইনের ব্যবস্থা থাকবে।  জেলা শিশু সুরক্ষা কমিটির আধিকারিকরা সেখান থেকে পাওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। একই সঙ্গে এই অ্যাপের মাধ্যমে নাবালিকার বিয়ে সহ একাধিক বিষয়ে অভিযোগ জানাতে পারবেন আমজনতা। সেক্ষেত্রে পুলিশ-প্রশাসন দ্রুত ব্যবস্থা নিতে পারবে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর। এতে শিশুদের সুরক্ষার আরও উন্নত হবে বলেই দাবি কর্তাদের।

জেলা শিশু সুরক্ষা দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, শুধু পশ্চিমবঙ্গে নয় সমগ্র উত্তর-পূর্ব ভারতে এমন কোনও অ্যাপস শিশুদের সুরক্ষার জন্য অতীতে চালু হয়নি। পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রশাসন ও শিশু সুরক্ষা জেলা কমিটি এক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা নিল তা বলা যেতেই পারে।

- Advertisement -

জেলা শাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাজি বলেন, ‘শিশুদের সুরক্ষা ও তাদের সার্বিক বিকাশের উপর নির্ভর করে দেশের ভবিষ্যৎ। জেলা শিশু সুরক্ষা কমিটি ও জেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে অভিনব এই অ্যাপ উদ্বোধন করা হয়। প্রধান উদ্দেশ্য, শিশু সুরক্ষা সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য রিপোর্টিং আকারে গ্রাম সংসদ থেকে শুরু করে ব্লক ও পুরনিগমের ওয়ার্ড কমিটি থেকে একেবারে জেলা শিশু সুরক্ষা কমিটির কাছে পৌঁছে দেওয়া। নাবালিকাদের বিবাহ সংক্রান্ত তথ্য থাকলে তাও এই অ্যাপের মাধ্যমে দিলে জেলা শিশু সুরক্ষা কমিটির তরফে সঙ্গে সঙ্গে বিডিও, থানার ওসিদের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।’