উহানে করোনার খবর প্রকাশ্যে আনায় চিনে ৫ বছরের কারাদণ্ড মহিলা সাংবাদিকের

475

লন্ডন: উহানে করোনা সংক্রমণের ঘটনা প্রকাশ্যে আনায় চিনে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হল এক মহিলা সাংবাদিকের। এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ওই মহিলা সাংবাদিকের নাম ঝাং ঝান। এর আগে তিনি পেশায় আইনজীবী ছিলেন। পরে আইনের পেশা ছেড়ে সাংবাদিকতা শুরু করেন। ওই মহিলা সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ভুয়ো তথ্য ছড়ানোর অভিযোগে আগেই মামলা দায়ের করা হয়েছিল। বিচারে ওই সাংবাদিককে দোষী সাব্যস্ত করা হয়।

চিনে সরকার বা প্রশাসনের বিরুদ্ধে কেউ সমালোচনা করলে অশান্তি পাকিয়ে সরকারকে সমস্যায় ফেলার অভিযোগ আনা হয়। উহানে করোনা সংক্রমণের খবর প্রকাশ্যে আনায় ওই মহিলা সাংবাদিকের বিরুদ্ধেও এই অভিযোগ আনা হয়েছিল। তার প্রেক্ষিতেই ছ’মাসেরও বেশি সময় ধরে একজন বিচারাধীন হিসেবে সাংহাইয়ে বন্দি রয়েছেন ওই মহিলা সাংবাদিক।

- Advertisement -

সরকার পক্ষের অভিযোগ, উইচ্যাট, ট্যুইটার ও ইউটিউবকে কাজে লাগিয়ে লেখা ও ভিডিয়োর মাধ্যমে একাধিক সংবাদমাধ্যম সহ বিভিন্ন জনের কাছে তথ্য সরবরাহ করেছেন। অভিযোগ, উহানকে কোভিড-১৯ মহামারির হটস্পট হিসেবে তুলে ধরে ফ্রি রেডিয়ো এশিয়া ও ইপোক টাইমসকে সাক্ষাত্‍‌কারও দেন। এসবের প্রেক্ষিতেই ওই মহিলা সাংবাদিকের বিরুদ্ধে শাস্তির খাঁড়া নেমে আসে। করোনা সংক্রমণের খবর করায় এর আগে চিনে একাধিক সাংবাদিক গ্রেপ্তার হয়েছেন বলে চিনের মানবাধিকার সংগঠন চাইনিজ হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার্স সূত্রে জানা গিয়েছে।

২০১৯-এ ডিসেম্বরে প্রথম করোনা সংক্রমণের হদিস মেলে চিনের উহানে। ক্রমশ তা ছড়িয়ে পড়ে গোটা বিশ্বে। উহান থেকেই করোনার সূত্রপাত বলে মনে করা হলেও তা স্বীকার করেনি চিন। এমনকি, অভিযোগও উঠেছে যে উহানের ল্যাবেই জন্ম এই ভাইরাসের। যদিও তা অস্বীকার করে চিন দাবি করে, তারাই প্রথম এই ভাইরাসের কথা উল্লেখ করে গোটা বিশ্বকে সতর্ক করে দেয়।