বল্লম দিয়ে ভারতীয় সেনার ওপর হামলার চেষ্টা চিনের, লাদাখে ফের উত্তেজনা

1462

উত্তরবঙ্গ সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক: লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা তুঙ্গে। যে কোনও মুহূর্তে ছোটখাটো যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। বর্তমানে দুই দেশের জওয়ানরা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় মুখোমুখি অবস্থান করছেন। এরই মাঝে বল্লম, কুকরি, স্বয়ংক্রিয় বন্দুক হাতে ৪০-৫০ জন চিনা সেনার ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। সূত্রের খবর, এই মুহূর্তে লাদাখের মুখপাড়ি চূড়া থেকে প্রায় ২০০ মিটার দূরে রয়েছে ৪০-৫০ জন চিনা সেনা। লালফৌজ ওই চূড়া দখলের চেষ্টায় রয়েছে।

সোমবার সন্ধ্য়ায় প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণ পাড়ে রেচিন লা-রেজাংলা-মুখপাড়ি এবং মাগার হিলের মাঝামাঝি এলাকায় খুব কাছাকাছি চলে আসে চিনা ও ভারতীয় সেনা। সূত্রের খবর, সোমবার চিনা সেনা মুখপাড়ির কাছে চলে এলে ভারতীয় জওয়ানরা চিৎকার করে তাদের হুঁশিয়ারি দেন। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) অতিক্রম করলে চিনা সেনাদের গুলি করারও হুঁশিয়ারি দেন ভারতীয় জওয়ানরা। এরপর চিন সৈন্য পিছু হটে। ফেরার পথে শূন্যে গুলি চালায় চিনা সেনা। যদিও সোমবার চিনের তরফে জানানো হয়েছিল, ভারতীয় সেনাই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় গুলি চালিয়েছে। কিন্তু ভারতের তরফে সেই দাবি খারিজ করে দিয়ে মঙ্গলবার জানানো হয়েছে, লালফৌজই প্রথমে গুলি চালিয়েছে। চিনা সেনাদের শুধু জবাব দেওয়া হয়েছে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফে আরও জানানো হয়েছে, পিএলএ-র সৈন্যরা শূন্যে ১০-১৫ রাউন্ড গুলি চালিয়েছিল। কিন্তু ভারতীয় জওয়ানরা লালফৌজের উস্কানির ফাঁদে পা দেননি। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় সোমবার রাতে গুলি চলার ঘটনা ঘটলেও দু’পক্ষের কেউ হতাহত হননি।

- Advertisement -

বল্লম দিয়ে ভারতীয় সেনার ওপর হামলার চেষ্টা চিনের, লাদাখে ফের উত্তেজনা| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

সরকারি সূত্র জানিয়েছে, সোমবার সন্ধ্যায় পূর্ব লাদাখের ভারতীয় সেনা চৌকিতে আচমকা আক্রমণের জন্য চিনা সেনা বল্লম, কুকরি, স্বয়ংক্রিয় বন্দুক নিয়ে জড় হয়েছিল। পিএলএ-এর চেষ্টা ছিল, লাদাখের মুখপাড়ি চূড়া এবং রেকিন লা অঞ্চল থেকে ভারতীয় সেনাদের অপসারণ করা এবং সেগুলির দখল নেওয়া। কিন্তু ভারতীয় জওয়ানরা চিনা সেনার সেই পরিকল্পনা ব্যর্থ করেছেন। কৌশলগত অবস্থানের দিক থেকে মুখপাড়ি চূড়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এখান থেকে সহজেই পিপল’স লিবারেশন আর্মি (পিএলএ)-র গতিবিধির ওপর নজর রাখতে পারছে ভারতীয় সেনা।

উল্লেখ্য, গত ১৫ জুন পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনার মধ্যে সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান শহিদ হন। তারপর থেকেই ভারত ও চিনের মধ্যে সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকেছে। দুই দেশের সেনা কমান্ডার পর্যায়ে বেশ কয়েকবার বৈঠক হলেও সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসেনি। উলটে লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় উত্তেজনা সেই মে মাস থেকে বেড়েই চলেছে। সম্প্রতি রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওয়েই ফেংহে বৈঠক করেন। কিন্তু তারপরও অবস্থার কোনও পরিবর্তন হয়নি। পরিস্থিতি আরও জটিল হয়েছে। ইতিমধ্যেই শি জিনপিং সরকারের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, চিন এক ইঞ্চিও জমি ছাড়বে না। এরই মাঝে এবার বল্লম, স্বয়ংক্রিয় বন্দুক সহ চিনা সেনার ছবি প্রকাশ্যে এল। ফলে লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় উত্তেজনা যে আপাতত থামছে না, এটা বলাই যায়।