ভোটের মুখে জোটে ধাক্কা, বিজেপিতে যোগ চোপড়ার কংগ্রেস নেতার

195

চোপড়া: উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া বিধানসভা কেন্দ্রে বাম-কংগ্রেস জোটে বড়সড় ধাক্কা। চোপড়া আসনে স্থানীয় কংগ্রেস নেতৃত্ব টিকিটের আশা করেছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত ব্যর্থ হন তাঁরা। অবশেষে বুধবার ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অশোক রায় তাঁর দলবল নিয়ে বিজেপিতে যোগদান করলেন। যদিও আগে থেকেই অশোকবাবুর বিজেপিতে যোগদান নিয়ে জল্পনা চলছিল।

জোট সমীকরণে আসনটি সিপিআইএমের দখলে যাওয়াতে এদিন বিজেপিতে যোগদান করলেন এই কংগ্রেস নেতা। কংগ্রেস শিবির সূত্রে খবর, বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে চোপড়া ব্লকে শক্তিশালী কংগ্রেস। কিন্তু অনেক চেষ্টা করেও আসনটি কংগ্রেসকে ছাড়া হয়নি বলেই এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন অশোকবাবু। তিনি বলেন, ‘৪০ বছর ধরে কংগ্রেস করছেন। ৩২ বছর ধরে তিনি ব্লক কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। প্রত্যেকবার কংগ্রেসকে জোটের টিকিটের আশ্বাস দেওয়া হলেও কোনওবারই শেষ পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে না। দলের সবার সঙ্গে কথা বলেই তিনি বিজেপিতে যোগদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এবার শাসকদল তৃণমূলকে হারানোই তাঁদের মূল লক্ষ্য।

- Advertisement -

সিপিআইএমের রাজ্য কমিটির সদস্য তথা এবারের জোটের সম্ভাব্য প্রার্থী আনওয়ারুল হক বলেন, ‘কংগ্রেস কোনওদিনই জোটের সঙ্গে থেকে সহযোগিতা করেনি। গতবারও বিধানসভা নির্বাচনে অশোক রায় গোজ প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়েছেন। এতে কোনও ক্ষতি হবে না বরং বিপদ কাটল বলেই মন্তব্য করেন আনওয়ারুল হক।

কংগ্রেসের দলীয় সূত্রে খবর, শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে যোগদানের পর পরই অশোক রায় তাঁর সঙ্গে দেখা করেছিলেন। শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ অশোকবাবু এবার চোপড়া বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থী হতে পারেন বলে কংগ্রেস নেতা-কর্মীদের ধারণা। এদিন চোপড়া ব্লকের লক্ষ্মীপুর এলাকায় ব্লক সভাপতি অশোক রায়, কংগ্রেসের জেলা সাধারণ সম্পাদক ফারজুল ইসলাম সহ স্থানীয় কংগ্রেস নেতৃত্ব বিজেপির রাজ্য সংখ্যালঘু সেলের সাধারণ সম্পাদক শাহিন আখতারের সহ বিজেপির জেলা নেতৃত্বের হাত ধরে দলীয় পতাকা নেন।