চোপরো নদী গিলতে চলেছে রাস্তা ও কৃষিজমি, উদ্বিগ্ন কৃষকরা

257

সুভাষ বর্মন, শালকুমারহাট: আলিপুরদুয়ার-১ ব্লকের পূর্ব কামসিং গ্রামে চোপরো নদী ও পাশে নালার ভাঙনে উদ্বেগ বেড়েছে। ওই গ্রামের একটিমাত্র মাটির রাস্তা ভাঙতে শুরু করেছে। বিঘা বিঘা কৃষিজমি ভাঙনের মুখে। অনেকের বীজতলা ভেঙে যাচ্ছে। এই নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা ও কৃষকদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

তাঁদের দাবি, কয়েকবছর ধরেই এই ভাঙন মারাত্মক আকার নিয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, প্রশাসন প্রতি বছর বাঁশের পাইলিং দিয়ে ভাঙন রোধের ব্যর্থ চেষ্টা করে। তাই স্থায়ীভাবে ভাঙন প্রতিরোধের দাবি জানিয়েছেন এলাকার মানুষ।

- Advertisement -

আলিপুরদুয়ার-১ ব্লকের চকোয়াখেতি গ্রাম পঞ্চায়েতের পূর্ব কামসিং গ্রাম দিয়ে বয়ে গিয়েছে চোপরো নদী। শুখামরশুমে জল কম থাকলেও বর্ষায় ফুলেফেঁপে ওঠে এই নদী। এই নদীর জল একটি নালা হয়ে মাটির রাস্তার পাশ দিয়ে গিয়েছে। নদীর পাড় ভাঙনের পাশাপাশি বর্তমানে ওই নালার জলে ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। মাটির রাস্তার অধিকাংশই ভেঙে গিয়েছে। এজন্য যাতায়াতের ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়েছেন এলাকার মানুষ। তবে একের পর এক কৃষি জমি ভাঙতে শুরু করায় রাতের ঘুম উড়ে যাচ্ছে কৃষকদের।

স্থানীয় পুলিন চন্দ্ররায় বলেন, ‘চোখের সামনে রাস্তাটি ভেঙে যাচ্ছে। এখন এই রাস্তার উপর দিয়ে ছোট গাড়িও চলাচল করতে পারে না। হাটবাজারে যেতে আমরা সমস্যায় পড়ছি।’ তিনি বলেন, এর আগে বেশ কয়েকবার এই ভাঙন আটকানোর জন্য বাঁশের পাইলিং দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বর্ষায় ওই পাইলিং থাকে না। আগের তুলনায় এবারের ভাঙনের মাত্রা অনেক বেশি৷ তাই বোল্ডার বাঁধ তৈরির দাবি জানানো বয়েছে।

স্থানীয় কৃষক উজ্জ্বল দাস, প্রমোদ দাস, সাবিত্রী রায় জানান, তাঁদের কয়েক বিঘা কৃষি জমি ইতিমধ্যে ভেঙে গিয়েছে। এখনও জমির ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। ওই নালার পাশে আমন ধানের বীজতলাও ভেঙে যাচ্ছে। তাই তাঁরা এই ভাঙন প্রতিরোধের দাবি জানিয়েছেন। পাশাপাশি প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন এলাকাবাসী। আলিপুরদুয়ার-১ ব্লক প্রশাসনের তরফে অবশ্য বিষয়টি খতিয়ে দেখে পদক্ষেপ করার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

এই প্রসঙ্গে আলিপুরদুয়ার-১ পঞ্চায়েত সমিতির ভূমি কর্মাধ্যক্ষ পীযুষ কান্তিরায় বলেন, ‘পূর্ব কামসিং এর চোপরো নদীর ভাঙনের বিষয়টি আমরা শুনেছি। দ্রুত ওই এলাকা পরিদর্শন করা হবে। পঞ্চায়েত সমিতির বৈঠকেও এই নিয়ে আলোচনা করা হবে।’ ভাঙন প্রতিরোধের জন্য দ্রুত পদক্ষেপ করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।