চড়কে মানুষের মাথার খুলির খোঁজ জামালদহে

161

জামালদহ: চড়ক উৎসবের একটি বিশেষ অনুষ্ঠান হল হাজরা পরব। এই হাজরা পরব নিষ্ঠা সহকারে পালনের জন্য মানুষের মাথার খুলি চাই। মাটি খুঁড়ে সেই মাথার খুলি ফি বছর চড়ক পুজোর আগে সংগ্রহ করেন উদ্যোক্তারা। দীর্ঘ ২৭ বছর ধরে এমনটাই হয়ে আসছে কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ ব্লকের জামালদহের খারিজা গোপালপুর এলাকার চড়ক উৎসবে। উদ্যোক্তারা জানান, শুধুমাত্র গত বছর করোনা পরিস্থিতির জন্য চড়ক উৎসব স্থগিত ছিল। কিন্তু এবার তা পালিত হবে। এর জন্য জোরদার প্রস্তুতি চলছে। খারিজা গোপালাপুরের চড়ক উৎসবের অন্যতম আকর্ষণ হাজরা পরব। এবার এই চড়ক পুজো ২৮ বছরে পদার্পণ করেছে। এই চড়ক উৎসব উপলক্ষ্যে কাটুয়ারডাঙ্গা এলাকায় বিরাট মেলাও বসে। বুধবার চৈত্র সংক্রান্তির দিন চড়ক পুজো ও মেলায় মেতে উঠবে বাসিন্দারা।

আয়োজক কমিটি অন্যতম সদস্য হরেকৃষ্ণ মণ্ডল, মৃত্যুঞ্জয় সন্ন্যাসী, সুরেন্দ্রনাথ দাস প্রমুখ জানিয়েছেন, গত বছর ঐতিহ্যবাহী এই চড়ক উৎসব না হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই মন খারাপ ছিল এলাকাবাসীর। এবার করোনা বিধি মেনেই চড়ক উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। চৈত্র সংক্রান্তির দিন পুজো অনুষ্ঠিত চড়কে ঘূর্ণি দেওয়া হবে পয়লা বৈশাখের দিন। ওইদিন মেলাও বসবে।

- Advertisement -

ভোট পর্ব মিটতেই চড়ক পুজো ও মেলাকে ঘিরে স্থানীয় এলাকায় একটা নতুন রকমের উদ্যম তৈরি হয়েছে। সুষ্ঠভাবে অনুষ্ঠান সম্পন্ন করার জন্য কয়েকদিন ধরে পাড়ায় পাড়ায় ঘুরে গান বাজনা করে অর্থ সংগ্রহ করছে উদ্যোক্তারা। যতই যাই হোক, চড়ক উপলক্ষ্যে চৈত্র সংক্রান্তির আগের দিন এখানে হাজরা পরব অনুষ্ঠিত হয়। সেই পরবে মানুষের মানুষের মাথার খুলি চাই ই। সারারাত ধরে গান বাজনা, কালিকা নৃত্যের মাধ্যমে হাজরা পরবে মেতে ওঠে খারিজা গোপালাপুরের মানুষ। এই হাজরা পরবের জন্য কবর থেকে মানুষের মাথার খুলি তুলে আনা হয়। হাজরা পরবের হাত ধরেই এখানে চড়ক উৎসবের মূলত সূচনা হয়।