শ্রমিক মেলার উদ্বোধনে এসে সিটুর বিক্ষোভের মুখে মন্ত্রী

120

রায়গঞ্জ: সোমবার উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জে শ্রমিক মেলার উদ্বোধনে এসে সিটুর বিক্ষোভের মুখে পড়লেন রাজ্যের শ্রম দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী গোলাম রব্বানী।

সিটুর দাবি, শ্রমিকরা দীর্ঘদিন ধরে ন্যায্য পাওনার দাবি জানিয়ে আসছেন। কিন্তু তা না মিটিয়ে রাজ্য সরকার বিভিন্ন মেলার আয়োজন করছে। এতে অর্থের অপচয় হচ্ছে। এই অভিযোগ তুলে এদিন মেলার গেটের মুখে বিক্ষোভ দেখান সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। বিক্ষোভে নেতৃত্ব দেন সিটুর জেলা সভাপতি পরিতোষ দেবনাথ, নীলকমল সাহা, বিপ্লব সেনগুপ্ত সহ অন্যরা। পুলিশ এদিন বিক্ষোভকারীদের মেলার গেটে মুখে আটকে দেয়। যদিও আন্দোলনকে গুরুত্ব দিতে নারাজ মন্ত্রী।

- Advertisement -

বিক্ষোভ চলাকালীন এদিন মেলার উদ্বোধন করেন মন্ত্রী গোলাম রব্বানী। উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সভাধিপতি কবিতা বর্মন, রায়গঞ্জ পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান অরিন্দম সরকার, শিক্ষাবিদ শুভেন্দু মুখোপাধ্যায়, শ্রম দপ্তরের আধিকারিক সোমনাথ রায়, জেলা তথ্য ও সাংস্কৃতিক আধিকারিক রানা দেবদাস প্রমুখ। রায়গঞ্জ করোনেশন হাইস্কুল চত্বরে সোম ও মঙ্গলবার শ্রমিক মেলা চলবে। মেলায় ১৮টি সরকারি স্টল রয়েছে। এদিন ১৫০ জনকে সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে ২৬ লক্ষ টাকার চেক তুলে দেওয়ার পাশাপাশি ৩৫০ জনকে ১৫০০ টাকা করে পেনশন দেওয়া হয়।

সিটুর জেলা সভাপতি পরিতোষ দেবনাথ বলেন, ’রাজ্য সরকার অসংগঠিত ক্ষেত্রে কর্মরত শ্রমিকদের কোনও সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে না। প্রকল্পের নামে প্রতারিত করা হচ্ছে। খেলা, মেলার নামে কোটি কোটি টাকা নষ্ট করা হচ্ছে। আর সেই টাকা নেতা-মন্ত্রীদের পকেটে যাচ্ছে। তাই এদিন শ্রম দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রীকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো হয়েছে। আগামীতে দপ্তর ঘেরাও করা হবে।‘

যদিও মন্ত্রী গোলাম রব্বানী বলেন, ’রাজ্য সরকার শ্রমিকদের জন্য একের পর এক প্রকল্প চালু করছে। লকডাউনের সময় কিছু সমস্যা দেখা দিলেও এখন স্বাভাবিক গতিতে কাজ চলছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায় অসংগঠিত শ্রমিকদের উন্নয়নে পদক্ষেপ করেছেন। তাই এসব আন্দোলন করে উন্নয়ন আটকানো যাবে না।‘