ঘোকসাডাঙ্গা, ২০মার্চঃ বিয়ের মাত্র চার মাস হতে না হতেই অন্তস্বত্তা স্ত্রীকে নির্যাতন ও তাঁর গর্ভের সন্তানকে হত্যার চেষ্টার দায়ে গ্রেফতার হলেন এক সিভিক ভলেন্টিয়ার। ঘটনাটি ঘটেছে মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের ঘোকসাডাঙ্গা এলাকায়। গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্তকে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের ঘোকসাডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের ছোট শিমুল গুড়ি এলাকার পম্পা বর্মনের সঙ্গে প্রায় চার মাস আগে প্রেমেরডাঙ্গা গ্রাম পঞ্চায়েতের সুভার পারার উজ্জ্বল বর্মনের সামাজিক মতে বিয়ে হয়। উজ্জ্বল বর্মন বর্তমানে ঘোকসাডাঙ্গা থানায় সিভিক ভোলেন্টিয়ার পদে কর্মরত। পম্পা বর্মন তার লিখিত অভিযোগে জানান, বিয়ের কিছু দিন পর থেকেই তাঁর উপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার চলত। এমনকি গর্ভে থাকা সন্তান নষ্ট করার জন্য চাপ দেওয়া হত তাকে। তিনি বলেন, ‘আমি তাতে রাজি না হওয়ায় গত ১৮ মার্চ রাতে আমার তলপেটে লাথি মেরে গর্ভে থাকা ভ্রূণ নষ্ট করার চেষ্টা করে ও গলা টিপে আমাকে প্রাণে মারার চেষ্টা করে স্বামী।’ খবর পেয়ে সেই রাতেই তাকে উদ্ধার করে ঘোকসাডাঙ্গা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে তাকে ভরতি করে তাঁর বাবা। গোটা ঘটনা জানিয়ে মঙ্গলবার ঘোকসাডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন পম্পা দেবী। অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করা হয়েছে তাঁর বিরূদ্ধে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

সংবাদদাতাঃ রাকেশ শা