থানাতেই আত্মহত্যার চেষ্টা সিভিক ভলান্টিয়ারের

961

রায়গঞ্জ, ২৪ ফেব্রুয়ারিঃ হাতের শিরা কেটে গলায় ফাঁস দিয়ে থানার মধ্যেই আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন এক সিভিক ভলান্টিয়ার। রবিবার রাতে এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় রায়গঞ্জে। গতরাত ন’টা নাগাদ কর্তব্যরত অবস্থায় থানার একটি ঘরে হাতের শিরা কেটে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বাপ্পা দাস নামে ওই সিভিক ভলান্টিয়ার। সেই ঘটনা দেখে ফেলেন কর্তব্যরত এক পুলিশ কর্মী। সঙ্গে সঙ্গে ওই সিভিক ভলান্টিয়ারকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জখম ওই সিভিক ভলান্টিয়ারের বাড়ি রায়গঞ্জ শহরের দেবীনগর এলাকায়।

সূত্রের খবর, রায়গঞ্জ থানার দুই পুলিশ অফিসারের নাম লিখে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি। সেই লেখা বিভিন্ন পুলিশ অফিসারদের হোয়াটস অ্যাপে দিয়ে দেন তিনি। তাঁর বক্তব্য, ‘আমার যদি মৃত্যু হয়, তার জন্য দায়ী থাকবেন ওই দুই পুলিশ অফিসার। মানসিকভাবে আমাকে যন্ত্রণা দিয়েছেন।’

- Advertisement -

জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক অনুতোষ মাইতি বলেন, ‘ওই সিভিক ভলান্টিয়ারের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এদিকে ওই সিভিক ভলান্টিয়ারের অবস্থা ক্রমশ অবনতি হওয়ায় অন কল ডাক্তার হিসেবে নিয়ে আসা হয় পার্থসারথি দাসকে। তাঁর বক্তব্য, ‘২৪ ঘণ্টা না গেলে কিছু বলা যাবে না।’ পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত করছে। তবে এ বিষয়ে কিছু বলতে চাননি পুলিশকর্তারা।