ঘর বিলি নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ, তৃণমূল-সিপিএম তরজা

209

হরিশ্চন্দ্রপুর: প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার তালিকায় একই উপভোক্তার নামে দুটি করে আইডি। বিডিও অফিসে অভিযোগ জানাতেই বচসা বাধে তৃণমূল ও সিপিআইএমের মধ্যে। তা গড়ায় হাতাহাতিতে। এতে আহত হন দু’পক্ষের দু’জন। শুক্রবার সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটে হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নম্বর ব্লকের মহেন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ভবানীপুর গ্রামে। আহত তৃণমূল নেতা আনোয়ার কবির ও সিপিআইএমের এক কর্মী সাদির হোসেন হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনায় দু’পক্ষই একে অপরের বিরুদ্ধে হরিশ্চন্দ্রপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা গিয়েছে, মহেন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সিপিআইএমের সদস্যা রবিনা খাতুন ও তাঁর স্বামী গোলাম ‌মর্তুজা এবং নোডাল অফিসার মহম্মদ ইয়াসিনের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার বিডিও অফিসে লিখিত অভিযোগ জানান তৃণমূল নেতা আনোয়ার কবির ও উপভোক্তার একাংশ। অভিযোগের ভিত্তিতে শুক্রবার তদন্তে আসেন জয়েন্ট বিডিও। তদন্ত করে যেতেই দু’পক্ষের মধ্যে ঝামেলা বাধে। বিডিওর নির্দেশ অমান্য করে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার তালিকায় একই উপভোক্তার দুটি আইডিতে টাকা ঢোকানোর জন্য রেজিস্ট্রেশন করিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে। একই তালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও প্রথম কিস্তির টাকা পর্যন্ত পাননি অনেক উপভোক্তাই। তাই কিস্তির টাকা পাওয়ার দাবিতে এবং সরজমিন তদন্ত চেয়ে বৃহস্পতিবার বিডিওর দ্বারস্থ হয়েছিলেন হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নম্বর ব্লকের মহেন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ভবানীপুর পূর্ব বুথের উপভোক্তারা। যদিও অভিযুক্ত গোলাম মর্তুজা তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ কিছুটা স্বীকার করে নিয়েছেন।

- Advertisement -

গোলাম মর্তুজা জানান, অভিযোগটি আংশিক সত্য হলেও তাঁকে ফাঁসানোর একটা চক্রান্ত করছেন তৃণমূল নেতা আনোয়ার কবির ও তাঁর দলের লোকেরা। ভুলবশত হয়তো দ্বিতীয় আইডিতে রেজিস্ট্রেশন হয়ে গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত কোনও উপভোক্তার দ্বিতীয় আইডিতে টাকা ঢোকেনি। বিডিওর তদন্তের ভিত্তিতে সেই সব উপভোক্তাদের দ্বিতীয় আইডি বাদ দিয়ে দিলে তাঁর কোনও আপত্তি থাকবে না বলে জানান।

নোডাল অফিসার মহম্মদ ইয়াসিন জানান, পঞ্চায়েত সদস্যরা উপভোক্তাদের কাগজপত্রের ফাইল বানিয়ে পঞ্চায়েতে জমা দেন। সঠিক তথ্য যাচাই করেই টাকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করা হয়। হয়তো ভুলবশত এই কাজগুলি হয়ে গিয়েছে।

বিডিও অনির্বাণ বসু জানিয়েছেন, অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত হয়েছে। অভিযোগ তালিকার সঙ্গে তদন্ত সঠিক বেরিয়ে এলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে আশ্বাস দেন বিডিও।